অল্পবয়সী মেয়েরা কিভাবে পর্নোগ্রাফির ফাঁদে? জানতে হলে পড়ুন জয়ন্তনারায়ণ চট্টোপাধ্যায়ের ‘হানিট্র‍্যাপ’ 

অল্পবয়সী মেয়েরা কিভাবে পর্নোগ্রাফির ফাঁদে? জানতে হলে পড়ুন জয়ন্তনারায়ণ চট্টোপাধ্যায়ের ‘হানিট্র‍্যাপ’ 

 

মোল্লা জসিমউদ্দিন:-

 

টিভির পর্দায় নিউজ চ্যানেলে কিংবা খবরের কাগজে সংবাদে তিনি পরিচিত মুখ আইনজীবী হিসাবে তবে তাঁর লেখক পরিচয়টাও কম নয়। চলতি সপ্তাহে বাংলার কিংবদন্তি সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের হাত ধরে কলকাতা হাইকোর্টের ফৌজদারি বিশেষজ্ঞ আইনজীবী ও গোয়েন্দাধর্মী লেখক জয়ন্ত নারায়ণ চট্টোপাধ্যায়ের  ষষ্ঠ  বই ‘হানিট্র্যাপ’ প্রকাশিত হয়েছে ।প্রবাদপ্রতিম সাহিত্যিক  শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের  বাসভবনে বই টির  প্রকাশ হয়েছে। এই আইনজীবী ও লেখক জয়ন্তনারায়ণ চট্টোপাধ্যায়ের ইতিমধ্যেই ৫ টি বই প্রকাশের সাথেসাথেই জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বই গুলি হলো – ‘ গরাদের আড়ালে’, ‘সাদা-কালো’, ‘দৌড়’, ‘গ্যাংস্টার’ এবং ‘চেকমেট’।  ২০১৮ সালে জয়ন্তবাবু রাজ্য আইনী পরিষেবা কর্তৃপক্ষের বিচারে পূর্ব ভারতের ‘সেরা আইনী পরিষেবা প্রদানকারী আইনজীবী’র সম্মান পেয়েছেন। ‘হানিট্র‍্যাপ’ বইটি দুটি ভিন্নধর্মী উপন্যাস কেন্দ্রিক। ‘হ্যানিট্র‍্যাপ’ ও ‘মৃতেরাও কথা বলে’ উপন্যাসের মূল কেন্দ্রীয় চরিত্রে রয়েছেন আইনজীবী কন্দর্পনারায়াণ। যিনি একাধারে সোশ্যাল মিডিয়ায় অল্পবয়সী মেয়েদের পর্নোগ্রাফি ফাঁদে পড়ে যাওয়া থেকে রক্ষাকর্তা হিসাবে উঠে এসেছেন। অপরদিকে জীবিত  এক চার বছরের মেয়ের পরিবারের খুনি কে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দিতে এগিয়ে এসেছেন। কলকাতা হাইকোর্টে ফৌজদারি বিশেষজ্ঞ আইনজীবী হিসাবে জয়ন্তনারায়ণ চট্টোপাধ্যায়  এক পরিচিত নাম।হাইকোর্টে কখনও সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে পুলিশের মিথ্যা মামলায় সাংবাদিকদের হয়ে জোর সওয়াল-জবাব করতে দেখা যায় তাঁকে।আবার কখনো বা বহু হাইপ্রোফাইল মামলায় অন্যতম আইনজীবী হিসাবে  পাওয়া যায় তাঁকে।তবে আইনী সওয়াল-জবাবের পাশাপাশি অন্ততদন্তমূলক অপরাধের নানান চিত্র ফুটে উঠে তাঁর কলমে।ইতিমধ্যেই ‘গরদের আড়ালে’, ‘সাদা কালো’, ‘দৌড়’, ‘গ্যাংস্টার’ ‘চেকমেট’ বইগুলি পাঠকের কাছে সমাদৃত হয়েছে। এতে নবতম সংযোজন হলো – ‘হ্যানিট্র‍্যাপ’। ‘গ্যাংস্টার’ বই  উদঘাটনী সভায় ছিলেন দুই চিত্রপরিচালক নন্দীতা রায় ও শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়,  শিক্ষাবিদ দেবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, প্রকাশক দীপ্তাংশু মন্ডল প্রমুখ। এই আইনজীবীর প্রথম বই প্রকাশ গতবছর  ২৫ সেপ্টেম্বর। তখন দুটি বই  প্রকাশিত  হয়েছিল। ‘গরাদের আড়ালে’ এবং ‘সাদা কালো’।এরপর  গত বছরের ৫ ফেব্রুয়ারিতে  প্রকাশিত হয়েছিল ‘দৌড়’ বইটি। সম্প্রতি  প্রকাশিত  হয়েছে   বর্তমান  যুব সমাজের  অপরাধের প্রেক্ষিতে  ‘গ্যাংস্টার’ ।করোনা আবহে   সাড়ে দশ মাসে চার চারটি  বই লিখে ফেললেন তিনি। সব বই গুলোই পেশাগত আইনী জীবনের  অভিজ্ঞতার  থেকেই  লেখা। ‘গ্যাংস্টার’  বই টিতে, অল্পবয়সী শিক্ষিত  ছেলেরা কিভাবে, কম সময়ের  মধ্যে বেশী টাকা রোজগারের  আশায় পিস্তল  হাতে তুলে নিচ্ছে, ‘গ্যাংস্টার’   হয়ে যাচ্ছে সমাজের বুকে, সেই  কথাই  বলা হয়েছে।কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী হিসাবে টানা ২৩ বছর রয়েছেন। মারণ ভাইরাস করোনা আবহে আদালতের স্বাভাবিক ছন্দ যখন হারিয়ে ছিল। ঠিক তখন বিশ বছরের বেশি অজশ্র ফৌজদারি মামলায় আইনজীবী হিসাবে সওয়াল-জবাবের প্রয়োজনে  অপরাধের বিভিন্ন তথ্য অনুসন্ধানে বই লিখে ফেলেছেন চার চারটি।ইতিমধ্যেই ‘গ্যাংস্টার’ বই টি উদঘাটনে আসা দুই ভিন্নধর্মী সিনেমার  চিত্রপরিচালক এই আইনজীবীর প্রকাশিত বই ঘিরে আগামী দিনের সিনেমা বানানোর সম্ভাবনা জিইয়ে রেখেছেন। এবার চলতি সপ্তাহে কিংবদন্তি সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের বাসভবনে আইনজীবী ও লেখক জয়ন্তনারায়ণ চট্টোপাধ্যায় এর ষষ্ঠ বই ‘ হ্যানিট্র‍্যাপ’ প্রকাশিত হয়েছে।

আরো পড়ুন