আগুনে ভস্মীভূত গোটা বাড়ী,বাড়ি নির্মাণের নগদ টাকাও পুড়ে ছাই কৃষক পরিবারের, খোলা আকাশের নিচে ঠাই অসহায় পরিবারের

আগুনে ভস্মীভূত গোটা বাড়ী,বাড়ি নির্মাণের নগদ টাকাও পুড়ে ছাই কৃষক পরিবারের, খোলা আকাশের নিচে ঠাই অসহায় পরিবারের

 

চাঁচল; ১৮নভেম্বর: বাড়ি করবে বলে ঘরে মজুত করে রেখেছিল মোটা অংকের টাকা কিন্তু পাকা বাড়ির স্বপ্ন আর পূরণ হলনা কৃষকের। বাড়ি নির্মাণের আগেই বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ভস্মীভূত এক কৃষকের বাড়ি। বাড়িতে মজুত থাকা সোনার অলঙ্কার সহ দানা শস্য আসবারপত্র সমেত সমস্ত কিছু পুরে ভস্মীভূত। বৃহস্পতিবার দুপুরে মালদহের চাঁচলের থাহাঘাটি এলাকার আজামুদ্দিন নামে এক কৃষকের বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে। আগুন ভস্মীভূত তিনটি ঘর। ঘটনাস্থলে একটি দমকলের ইঞ্জিন। দমকলের ইঞ্জিন আসার আগেই আগুন নিভিয়ে ফেলে প্রতিবেশীরা। এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ওই এলাকায়।

জানা যায়, চাঁচলের থাহাঘাটি এলকার বাসিন্দা আজামুদ্দীন ও তার পরিবারের সদস্যরা ধানের জমিতে ধান তুলতে ব্যস্ত ছিলেন। ওই সময় গ্রামের লোকেরাই মাঠে গিয়ে খবর দেন তার বাড়িতে আগুন লেগেছে। খবর পেয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে ছুটে গিয়ে দেখেন বিধ্বংসী আগুনের লেলিহান শিখা তার গোটা বাড়ি দখল করে নিয়েছে। প্রতিবেশীরা সেই আগুন নেভাতে ব্যস্ত। খবর দেওয়া হয় চাঁচল দমকলে। চাঁচল থেকে দমকলের একটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই আগুন নিভিয়ে ফেলে গ্রামবাসীরা। বাকি আগুন নেভাতে সক্ষম হয় দমকলের কর্মীরা। তবে এদিন আগুন লাগার ঘটনায় ঘরের মধ্যে থাকা মজুদ কোন কিছুই বাঁচাতে পারেননি। সমস্ত কিছু পুড়ে ভস্মীভূত। নতুন বাড়ি করবে বলে ঘরের মধ্যে মোটা অঙ্কের টাকা মজুরি রেখেছিলেন ওই কৃষক। কৃষকের পাকা বাড়ির স্বপ্ন আগুনে পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে গেল এই দিন। তবে কিভাবে আগুন লেগেছে কিছুই বুঝতে পারছেন না ওই কৃষক ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা।

কৃষকের পুত্রবধূ শিউলী খাতুন জানান, আমার স্বামীও বাড়ির সদস্যরা জমিতে কাজ করছিলেন। হঠাৎই আমাদেরকে প্রতিবেশীরা খবর দেয় বাড়িতে আগুন লেগেছে। তড়িঘড়ি করে এসে দেখি বাড়িতে দাও দাও করে আগুন জ্বলছে। খবরটি দমকলে কিন্তু দমকল ২ঘন্টা দেরিতে আসে। ততক্ষনে প্রতিবেশীরাই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আমার স্বামী বাড়ি করার জন্য ঘরে লাখ নগদ টাকা রেখেছিলেন সেই টাকাও পুড়ে যায়। তার পাশাপাশি আসবাবপত্র খাদ্যশস্য সহ সবকিছুই ভষ্মিভূত। এখন আমরা খোলা আকাশের নিচে এসে দাঁড়িয়েছি। প্রশাসনের কাছে আবেদন করছি সরকারি সাহায্যের।

যদিও চাঁচলের ১ নং ব্লকের বিডিও সমিরন ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, পরিবারটি সরকারি সাহায্যের জন্য আবেদন করুক। প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব রকম সাহায্য করা হবে।

আরো পড়ুন