এই দিন থেকে ফের খুলে যেতে পারে স্কুলের দরজা, পরিকল্পনা শিক্ষা দপ্তরের

এই দিন থেকে ফের খুলে যেতে পারে স্কুলের দরজা, পরিকল্পনা শিক্ষা দপ্তরের

নিজস্ব প্রতিবেদন : করোনাকালে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে স্কুল। মাঝে মাঝে আংশিকভাবে এক-দুবার খোলা হলেও বারংবার ধাক্কা পেতে হচ্ছে। সম্প্রতি গত বছরের নভেম্বর মাসে পুনরায় স্কুল কলেজ খোলা হলেও ফের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় তা বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার।

তবে সম্প্রতি রাজ্য শিক্ষা দপ্তর ফের একবার আংশিকভাবে স্কুলের দরজা খুলে দেওয়ার পথে হাঁটতে পারে এমনটাই মনে করা হচ্ছে তাদের তৎপরতা দেখে। রবিবার থেকে এই বিষয়ে শুরু হয়েছে ওয়েবিনার। পাশাপাশি স্কুল শিক্ষা দপ্তর বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিতে শুরু করেছে। সরস্বতী পুজোর আগেই আংশিকভাবে স্কুল খুলে দেওয়া নিয়ে হতে চলেছে আলোচনা।

শনিবার স্কুল শিক্ষা দপ্তর জানিয়েছে, স্কুলের পরিবেশ থেকে দূরে থাকা এবং সহপাঠীদের সঙ্গে দেখা না হওয়ার কারণে পড়ুয়াদের মনে প্রভাব পড়ছে। ডিজিটাল মাধ্যমের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার অসুবিধা হওয়ার কারণে মনস্তাত্ত্বিক আচরণের ক্ষেত্রেও প্রভাব পড়ছে। এক্ষেত্রে যত্ন না নিলে এর প্রভাব হতে পারে দীর্ঘমেয়াদি। এর পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর বিশেষ ওয়েবিনার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই সিদ্ধান্ত পড়ুয়াদের মানসিক সহায়তা প্রদান করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সম্প্রতি রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেশি থাকলেও বিধিনিষেধের ক্ষেত্রে বেশ শিথিলতা আনা হয়েছে। এই শিথিলতা আনার পরিপ্রেক্ষিতে ইতিমধ্যেই একাধিক রাজনৈতিক এবং অরাজনৈতিক সংগঠন পুনরায় স্কুল খোলার জন্য দাবি দাওয়া শুরু করেছে। এমনকি পুনরায় স্কুল খোলার পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষা দপ্তরের চিঠি গিয়েছে নবান্নে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার সবুজ সংকেত মিলতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে।

অন্যদিকে পড়ুয়াদের অভিভাবকদের একাংশ পুনরায় স্কুলের দরজা খুলে দেওয়ার জন্য দাবী তুলছেন। গত শনিবারই এই নিয়ে বীরভূমের রাজগ্রাম মহামায়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের একাংশের অভিভাবকরা প্রধান শিক্ষকের দ্বারস্থ হন স্কুল খোলার দাবিতে। স্কুল কর্তৃপক্ষ এর পরিপ্রেক্ষিতে জানান, পরিকাঠামো সব তৈরি, কেবল সবুজ সংকেতের অপেক্ষা।

আরো পড়ুন