ওভারলোড গাড়ি দেখলেই কড়া ব্যবস্থা, হুঁশিয়ারি রাজ্য সরকারেরওভারলোড গাড়ি দেখলেই কড়া ব্যবস্থা, হুঁশিয়ারি রাজ্য সরকারের

ওভারলোড গাড়ি দেখলেই কড়া ব্যবস্থা, হুঁশিয়ারি রাজ্য সরকারের

নিজস্ব প্রতিবেদন : রাজ্যজুড়ে ওভারলোড গাড়ির প্রবণতা দিন দিন বাড়ছে। মাঝে কিছুদিন জরিমানা বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে এই প্রবণতা কমে ছিল। তবে ফের এই প্রবণতা বৃদ্ধি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এই প্রবণতা ঠেকাতে এবার কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিল রাজ্য সরকার।

ওভারলোডিংয়ের প্রবণতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ইতিমধ্যেই ক্ষুব্দ। এর পরিপ্রেক্ষিতে এবার তিনি কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার ঘোষণা করেছেন। ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি জানিয়েছেন, ওভারলোড ট্রাক ধরা পড়লে এবার কোনরকম রাখঢাক না রেখেই পারমিট বাতিল করা হবে। প্রয়োজনে ট্রাকটিকে সিজ পর্যন্ত করা হতে পারে। পাশাপাশি ফিরহাদ হাকিম বুঝিয়ে দিয়েছেন এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন অফিসার যুক্ত।

ফিরহাদ হাকিম কসবায় দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করে বলেন, “রাজ্যের বেশকিছু জেলায় নতুন করে ওভারলোডিং শুরু হয়েছে। বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদের মত জেলায় বেশি হচ্ছে। কি কারণে আবার ওভারলোডিং শুরু হলো তা নিয়ে পরিবহণ সচিবকে ওইসব এলাকার অফিসারদের থেকে জবাবদিহি চাইতে বলেছি।”

এর পাশাপাশি তিনি আরও জানান, “কোন কোন খাদান থেকে বাড়তি লোড নেওয়া হচ্ছে সেগুলো আমরা নজরে রাখছি। পরিবহণ দপ্তর ছাড়াও এই বিষয়ে পুলিশ এবং অন্যান্য দপ্তরকেও নজর রাখতে বলব।”

ওভারলোডিং বন্ধ করার জন্য এর আগেও একাধিকবার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্য পরিবহন দপ্তর। সেই সকল পদক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে একটা সময় এই ওভারলোডিং কিছুটা কম হলেও বর্তমানে ফেরতা বাড়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এমত অবস্থায় মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম নিজের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর দিয়ে সাধারণ মানুষকে আবেদন করেন ওভারলোড গাড়ি দেখলে গাড়ির নম্বর, জায়গার নাম লিখে পাঠাতে।

এছাড়াও পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানান, “মুখ্যমন্ত্রী নিজে চাইছেন ওভারলোড বন্ধ হোক। ওভারলোডের কারণে রাস্তাঘাটের দাঁত বেরিয়ে যাচ্ছে। সব ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যাচ্ছে।”

আরো পড়ুন