ওমিক্রণের বাড়বাড়ন্ত, বীরভূমে নিষিদ্ধ হল পিকনিক সহ জমায়েত

ওমিক্রণের বাড়বাড়ন্ত, বীরভূমে নিষিদ্ধ হল পিকনিক সহ জমায়েত

মাত্র দিন কয়েকের মধ্যে হঠাৎ রাজ্যে মাথাচাড়া দিয়েছে করোনা সংক্রমণ। দিন পাঁচেকের মধ্যেই এই সংক্রমণ একলাফে পৌঁছে গিয়েছে পাঁচ হাজারের কাছাকাছি। রাজ্যের পাশাপাশি বীরভূমেও এই আক্রান্তের সংখ্যা আচমকা বেড়েছে কয়েকগুণ। রবিবার বীরভূমে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৩০। এমন পরিস্থিতিতে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে জেলা প্রশাসনের মধ্যে।

এমত অবস্থায় আগের মতই বিধি নিষেধ নিয়ে তৎপরতা শুরু করলো বীরভূমের বিভিন্ন থানার পুলিশ। ইতিমধ্যেই রবিবার থেকে বীরভূমের দুবরাজপুর থানার তরফ থেকে এলাকার বিভিন্ন জায়গায় মাইকিং করে বিধিনিষেধ মানার জন্য সাধারণ মানুষকে সজাগ করা হচ্ছে। পাশাপাশি কোন ভাবেই জমায়েত করা যাবে না এবং মাস্ক ছাড়া বাইরে বের হওয়া যাবে না এই বার্তাও দেওয়া হচ্ছে।

এই সকল বিধিনিষেধ মানা না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও পুলিশের তরফ থেকে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায় মাইকিং করে। একইভাবে বর্তমান পিকনিক মরশুমে পিকনিক সম্পূর্ণ ভাবে নিষিদ্ধ করল দুবরাজপুর এবং সদাইপুর থানার পুলিশ। একইভাবে জেলার অন্যান্য জায়গাতেও পিকনিক এবং মেলা বন্ধ করা হবে বলেই জানা যাচ্ছে সূত্র মারফৎ।

এদিন সকাল থেকেই দুবরাজপুর এবং সদাইপুর থানার পুলিশকে বিভিন্ন জায়গায় মাইকিং করার পাশাপাশি বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে অভিযান চালাতে দেখা যায়। সেই অভিযান চলাকালীন ইতিমধ্যেই একাধিক নিয়মভঙ্গকারীকে আটক করে দুবরাজপুর থানার পুলিশ।

অন্যদিকে সদাইপুর থানার পুলিশের পক্ষ থেকে নীল নির্জন জলাধার বা বক্রেশ্বর জলাধার এলাকায় পিকনিক করতে আসা মানুষদের সচেতন করা হয় এবং আগামী কাল থেকে ওই এলাকায় পিকনিক বন্ধ থাকবে তা মাইকিং করে প্রচার করা হয়। পাশাপাশি সদাইপুর থানার ওসি মহঃ মিকাইল মিঞা মাস্ক না পরা ব্যক্তিদের মাস্ক বিলি করেন।

এসবের মধ্যেই আবার আগামীকাল থেকে রাজ্যে কড়া বিধিনিষেধ জারি হতে পারে এমনটাই জানা যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই দুপুর তিনটের সময় রাজ্যের মুখ্য সচিব সাংবাদিকদের মুখোমুখি হবেন। মনে করা হচ্ছে তখনই এই বিধি-নিষেধ সম্পর্কিত নির্দেশিকা প্রকাশ্যে আসতে পারে।

আরো পড়ুন