কয়েক সেকেন্ড দেরি হলেই যেত প্রাণ, আরপিএফ কনস্টেবলের তৎপরতায় বাঁচলেন মহিলা

কয়েক সেকেন্ড দেরি হলেই যেত প্রাণ, আরপিএফ কনস্টেবলের তৎপরতায় বাঁচলেন মহিলা

নিজস্ব প্রতিবেদন : প্ল্যাটফর্ম থেকে ট্রেন ছেড়ে যাওয়ার মুহূর্তে প্ল্যাটফর্ম এবং ট্রেনের মাঝের খাঁজে পড়ে যাচ্ছিলেন এক মহিলা যাত্রী। সেই মহিলা যাত্রীকে এক আরপিএফ উদ্ধার করে পুনর্জীবন দিলেন বলাইবাহুল্য। সেই ঘটনার ভিডিও পরে ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ঘটনা দেখে যেমন আঁতকে উঠেছিলেন প্লাটফর্মে উপস্থিত যাত্রীরা ঠিক তেমনই এই ভিডিও দেখে আঁতকে উঠেছেন দর্শকরা।

রেলের তরফ থেকে বারংবার যাত্রীদের ট্রেনে ওঠা নামার ক্ষেত্রে যেন তাড়াহুড়ো না করা হয় তা বলা হয়ে থাকে। সব সময় সর্তকতা অবলম্বন করে যেন ওঠানামা করেন যাত্রীরা এই নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু তা সত্বেও বিভিন্ন সময় দেরিতে প্লাটফর্মে পৌঁছানো অথবা তাড়াহুড়ো করে নামতে গিয়ে এমন বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। তবে এই সকল দুর্ঘটনার সাক্ষী থেকে যাত্রীদের সবসময় সতর্ক ভাবেই চলতে হবে। অন্যথায় কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই কিছু বুঝে ওঠার আগেই ঘটে যেতে পারে বড় দুর্ঘটনা।

জানা গিয়েছে এই ঘটনাটি ঘটেছে মুম্বইয়ের পানভেল স্টেশনে। ওই সময় দুর্ঘটনাগ্রস্ত ওই মহিলার নাম জ্ঞানদেবী রানা। বছর পঁয়ত্রিশের ওই মহিলা মহারাষ্ট্রের রায়গড় জেলার তালুকা পানভেল, কামোথে এলাকার সদগুরুকৃপা চলের বাসিন্দা। তিনি তার ছেলেকে নিয়ে ট্রেন ধরতে এসেছিলেন।

দুর্ঘটনার দিন ওই মহিলা সেন্ট্রাল রেলওয়ের মুম্বই ডিভিশনে পানভেল স্টেশনের ৬ নম্বর প্ল্যাটফর্মে পানভেল-গোরক্ষপুর এক্সপ্রেসে উঠতে গিয়ে এমন দুর্ঘটনার সম্মুখীন হন। সঙ্গে ছিলেন তার ছেলে অজয়। যদিও ওই প্লাটফর্মে রেলওয়ে প্রোটেকশন ফোর্সের এক কনস্টেবলের তৎপরতায় তাকে প্রাণে বাঁচানো সম্ভব হয়েছে, এমনকি সেরকম কোনো ক্ষতির মুখোমুখি হতে হয়নি।

সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পরা সেই ঘটনার মুহূর্তের ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ওই মহিলা যখন ট্রেনে উঠতে যাচ্ছিলেন তখনই ট্রেন চলতে শুরু করেছে। এরপর যখন ওই ট্রেনটি হালকা গতি নাই সেই সময় ওই মহিলা ট্রেনের বি-২ কোচে উঠতে গিয়েছিলেন। তখনই তিনি টাল সামলাতে না পেরে প্লাটফর্মে পড়ে যান এবং ট্রেনের চাকার দিকে তলিয়ে যাচ্ছিলেন। তখন তাকে উদ্ধার করেন কেআর মীনা নামের ওই আরপিএফ কনস্টেবল এবং প্লাটফর্মে উপস্থিত অন্যান্য যাত্রীরা। এরপর তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয় চিকিৎসার জন্য।

আরো পড়ুন