করোনার নতুন ভেরিয়েন্টের খোঁজ, উদ্বেগ বাড়াচ্ছে B.1.1529

করোনার নতুন ভেরিয়েন্টের খোঁজ, উদ্বেগ বাড়াচ্ছে B.1.1529

নিজস্ব প্রতিবেদন : করোনার দাপটে আমজনতা দেখেছে সবকিছু ছন্নছাড়া হতে। সেই আতঙ্কের রেস সম্প্রতি কেটেছে। এর বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য বাজারে এসেছে একাধিক ভ্যাকসিন। সেই সবকে পাথেয় করে যখন সাধারণ মানুষ ছন্দে ফিরছে তখন নতুন করে খোঁজ মিলেছে একটি ভেরিয়েন্টের। নতুন এই ভেরিয়েন্ট স্বাভাবিকভাবেই উদ্বেগ তৈরি করছে চিকিৎসক মহলে।

করোনার নতুন ভেরিয়েন্ট প্রকাশ্যে আসে গত ২৩ নভেম্বর। নতুন এই ভেরিয়েন্টের খোঁজ মিলেছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। করোনার এই নতুন ভেরিয়েন্ট নিয়ে একটি আপডেট সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেছেন লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের ভাইরোলজিস্ট ডঃ টম পিকক। সেখানে তিনি বিশদে তথ্য আপলোড করেছেন এবং জানিয়েছেন, এই ভেরিয়েন্টের অভিযোজন ক্ষমতা অনেক বেশি। পাশাপাশি তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন, এই ভেরিয়েন্টে অ্যান্টিবডি কাজ করবে কিনা তা নিয়েও।

নতুন করে যে করোনার ভেরিয়েন্ট খুঁজে পাওয়া গিয়েছে তার নাম হলো B.1.1529। এর প্রথম খোঁজ মেলে বৎসোয়ানায়। পরে তা ছড়িয়ে পড়েছে হংকং এবং দক্ষিণ আফ্রিকায়। দক্ষিণ আফ্রিকায় ইতিমধ্যেই এই নতুন ভেরিয়েন্ট ধরা পড়েছে ১১০ জন মানুষের শরীরে। এই ভেরিয়েন্টে রয়েছে আলফা, গামা ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া পি৬৮১এইচ মিউটেশনও। ৩২টি মিউটেশন রয়েছে এখানে।

করোনা ভাইরাসের যেসকল ভেরিয়েন্ট এখনো পর্যন্ত সামনে এসেছে তার মধ্যে চারটি ভেরিয়েন্টকে মারাত্মক হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। মারাত্মক এই চারটি ভেরিয়েন্ট হলো আলফা (B.1.1.7), বিটা (B.1.351), গামা (P.1) এবং ডেল্টা (B.1.617.2)। এরমধ্যে ডেল্টা ভেরিয়েন্ট ভারতে লক্ষ্য করা যায় করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলাকালীন। এই সকল ভেরিয়েন্টের মধ্যে এবার নতুন সংযোজন হলো B.1.1529।

ভারতের করোনা সংক্রান্ত টাস্ক ফোর্সের চেয়ারম্যান ডঃ এনকে অরোরা গতমাসে জানিয়েছিলেন, ভারতে গত ছয় মাসে কোন রকম নতুন ভেরিয়েন্টের খোঁজ পাওয়া যায়নি। তবে সম্প্রতি নতুন এই ভেরিয়েন্টের বিষয়টি সামনে আসার পর কেন্দ্রের তরফ থেকে রাজ্যগুলিকে সতর্ক করা হয়েছে। অন্যদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গত সেপ্টেম্বর মাসেই জানিয়েছিল, মোট ১৮৫টি দেশে ডেল্টা কোভিড ভেরিয়েন্টের উপস্থিতির খবর পাওয়া গিয়েছে।

আরো পড়ুন