কেন্দ্রের বড় পদক্ষেপ, মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স পরিবর্তনের প্রস্তাব

কেন্দ্রের বড় পদক্ষেপ, মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স পরিবর্তনের প্রস্তাব

নিজস্ব প্রতিবেদন : এযাবত মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স যা ধার্য রয়েছে তা হলো ১৮ বছর। তবে এই বয়স নিয়ে এবার কেন্দ্রের তরফ থেকে বড় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। এই বয়সসীমা বাড়ানোর জন্য ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা প্রস্তাবে ছাড়পত্র দিয়েছে। সেই ছাড়পত্রের পরিপ্রেক্ষিতেই এবার মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স পরিবর্তন হতে চলেছে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার তরফ থেকে মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স বাড়ানো নিয়ে প্রস্তাব পাশ করার পর তা সংসদে বিল আকারে পেশ করা হবে। সেই বিল সংসদের দুই কক্ষ পাশ হওয়ার পর রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরে আইনে পরিণত হবে। কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে মেয়েদের বিয়ের জন্য নূন্যতম ১৮ বছর বয়স কিছুটা বৃদ্ধি করা নিয়ে বেশ কয়েক মাস ধরেই চিন্তাভাবনা করছিল।

মেয়েদের বিয়ের জন্য নূন্যতম বয়স বৃদ্ধি করা নিয়ে অক্টোবর মাসে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার ইঙ্গিত ছিল মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স ২১ বছর করা নিয়ে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সেই ইঙ্গিতেই এবার সিলমোহর পরল। বয়স বৃদ্ধি সংক্রান্ত বিল পাস হয়ে আইনে পরিণত হলে বিয়ের ক্ষেত্রে পুরুষ এবং মহিলাদের মধ্যেকার বয়সের যে ব্যবধান রয়েছে তা ঘুচতে চলেছে।

মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স সংক্রান্ত আইন শেষবার সংশোধন হয়েছিল ১৯৭৮ সালে। সেই সময় তৎকালীন সরকার এই বয়স ১৮ বছর ধার্য করে। পাশাপাশি ছেলেদের বিয়ের নূন্যতম বয়স করা হয় ২১ বছর। তবে এবার দীর্ঘ ৪০ বছরের বেশি সময়ের পুরাতন আইন সংশোধনের প্রয়োজন হয়ে পড়ে বর্তমান আর্থ-সামাজিক দিক বিচার করে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে এমন পদক্ষেপ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।

এর আগে মেয়েদের বিয়ের জন্য নূন্যতম বয়স ১৮ বছর পুনর্বিবেচনার জন্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে দাবি ওঠে। এই দাবি মেনে কেন্দ্র সরকারের নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রক গত বছর জুন মাসে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি গঠন করে। সেই কমিটি বিয়ের জন্য নূন্যতম বয়স ১৮ বছর থেকে বাড়িয়ে ২১ বছর করার জন্য চলতি মাসে রিপোর্ট পেশ করে।

আরো পড়ুন