খুব তাড়াতাড়ি খুলতে পারে প্রাইমারি স্কুল, কি বললেন মুখ্যমন্ত্রী

খুব তাড়াতাড়ি খুলতে পারে প্রাইমারি স্কুল, কি বললেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন : দেশে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই বন্ধ রয়েছে স্কুল সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি রাজ্যে সংক্রমণ কম থাকায় অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের নিয়ে চলছে স্কুলের পঠন পাঠন এবং সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের নিয়ে চলছে পাড়ায় পাঠশালা। তবে এসবের মাঝেই সমস্ত শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্য স্কুলের দরজা খুলে দেওয়ার দাবি উঠছে।

সমস্ত শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্য স্কুলের দরজা খোলা নিয়ে এবার উত্তর দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বৃহস্পতিবার যা ইঙ্গিত দিয়েছেন, তা থেকে মনে করা হচ্ছে, খুব তাড়াতাড়ি খুলে যেতে পারে প্রাইমারি স্কুল।

বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে আয়োজন করা হয়েছিল উদ্বাস্তুদের জমির দলিল বিলি অনুষ্ঠান। যেখানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী সহ অন্যান্য আধিকারিকেরা। সেখানেই পুনরায় প্রাইমারি স্কুল খোলা নিয়ে মুখ খুলতে লক্ষ্য করা যায় মুখ্যমন্ত্রীকে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন বলেন, “আপাতত কয়েকটি ক্লাস হচ্ছে। পাড়ায় পাড়ায় শিক্ষালয় চলছে। প্রাইমারি অর্থাৎ একেবারে ছোটরা এখনও স্কুলে যাচ্ছে না। এবার সে বিষয়ে চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। শোনা যাচ্ছে, করোনার আরও একটা স্ট্রেন এসেছে। সে বিষয়টা ভাল করে দেখে নিয়ে স্কুল খোলা হবে।”

এছাড়াও তিনি বলেন, ছোটদের জন্য অর্থাৎ প্রাইমারি পড়ুয়াদের জন্য যদি স্কুলের দরজা খুলে দেওয়া হয় সে ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ পড়ুয়াদের নিয়ে ক্লাস করানো হবে। রোটেশন ভিত্তিক ক্লাস করানো হতে পারে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান এই নিয়েই চলছে চিন্তাভাবনা।

প্রাইমারি থেকে সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়ারা গত দু’বছরের কাছাকাছি সময় ধরে স্কুল থেকে দূরে সরে রয়েছে। অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়ারা রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে তিন দফায় স্কুলের মুখ দেখেছে। কিন্তু অন্যান্য পড়ুয়ারা মাঝে একবারও স্কুলের মুখ না দেখার কারণে স্বাভাবিকভাবেই তারা পড়াশোনা থেকে দূরে সরে যাচ্ছে এবং সব কিছু ভুলতে বসেছে। এই পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞমহল স্কুল খোলার দাবি তুলছে।

আরো পড়ুন