চালক ও খালাসি খুনে হরিয়ানা থেকে গ্রেপ্তার ১ : খুনের পুনর্গঠনের জন্য নিয়ে আসা হল সদাইপুরে

চালক ও খালাসি খুনে হরিয়ানা থেকে গ্রেপ্তার ১ : খুনের পুনর্গঠনের জন্য নিয়ে আসা হল সদাইপুরে

শেখ ওলি মহম্মদ সদাইপুর:-

বীরভূম জেলার সদাইপুর থানার বাঁধেরশোল বক্রেশ্বর ব্রিজের কাছে গত ১৮ অক্টোবর একটি অজ্ঞাত পরিচয় পচাগলা মৃতদেহ উদ্ধার করে সদাইপুর থানার পুলিশ। কিন্তু কে বা কারা সেখানে ফেলে পালিয়ে গেছে কোনো হদিশ পাওয়া যাইনি। তদন্ত শুরু করে সদাইপুর থানার পুলিশ। অন্যদিকে পশ্চিম বর্ধমান জেলার পাণ্ডবেশ্বর থেকে গত ১৫ অক্টোবর একটি অজ্ঞাত পরিচয় মৃতদেহ উদ্ধার করে পাণ্ডবেশ্বর থানার পুলিশ। তাঁরাও তদন্তে নামে। পাণ্ডবেশ্বর থানার পুলিশ তদন্তে নেমে হরিয়ানা থেকে গাড়ির এক চালককে গ্রেপ্তার করে। যে জায়গা গুলোতে মৃতদেহ দুটি পাওয়া গিয়েছিল সেই জায়গা গুলোতে আজ খুনের পুনর্গঠনের জন্য নিয়ে আসা হয় ঐ চালককে। খুন করার পর কোথায় ফেলে পালিয়ে গেছিল সেটা চিহ্নিত করার জন্যই তাঁকে আজ নিয়ে আসা হয়। ঐ চালকের নাম জয়দীপ। বাড়ি হরিয়ানাতে। তিনি জানান, গত ১৪ অক্টোবর দুবরাজপুরের রাণীগঞ্জ মোরগ্রাম ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের ওপর একটি হোটেলে খাবার খেতে নামেন। তারপর ওপর একটি গাড়ির খালাসি রবি রানাকে সেই হোটেলে খাবার খাওয়ার পর খুন করে তাঁর মৃতদেহ সদাইপুর থানার বাঁধেরশোল বক্রেশ্বর ব্রিজের কাছে একটি ঝোপে ফেলে পালিয়ে যায়। পাশাপাশি পশ্চিম বর্ধমান জেলার পাণ্ডবেশ্বরে ঐ লরীর মালিক তথা ড্রাইভার ধর্মেন্দ্রকে খুন করে সেখানে ফেলে পালিয়ে যায়। তারপর সেই লরী হাইজ্যাক করে নিয়ে পালিয়ে যায় গ্রেপ্তার হওয়া চালক জয়দীপ। তাঁকে পাণ্ডবেশ্বর থানার পুলিশ হরিয়ানা থেকে গ্রেপ্তার করে। খুন করে ফেলে পালিয়ে যাওয়া সেই জায়গা গুলোতে নিয়ে আসা হয়। এদিন উপস্থিত ছিলেন দুর্গাপুরের সিআই পিণ্টু সাহা, পাণ্ডবেশ্বর থানার ওসি রবীন্দ্র নাথ দলুই, সিউড়ি সদর সার্কেল ইন্সপেক্টর কিশোর সিনহা চৌধুরি, সদাইপুর থানার ওসি মিকাইল মিয়া সহ অন্যান্য পুলিশ অফিসাররা।

আরো পড়ুন