ছাগলে খেলো ক্ষেতের ধান, বাঁশ, লাঠি নিয়ে লড়াইয়ে নামলো দুই গ্রাম

ছাগলে খেলো ক্ষেতের ধান, বাঁশ, লাঠি নিয়ে লড়াইয়ে নামলো দুই গ্রাম

নিজস্ব প্রতিবেদন : ক্ষেতের ধান ছাগলে খেয়ে নিয়েছে। ছাগলে এই ক্ষেতের ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে তীব্র উত্তেজনা ছড়াল বীরভূমের ইলামবাজারের থানা এলাকায়। এই থানা এলাকার দুটি গ্রামের বাসিন্দারা ক্ষেতের ধান ছাগলে খাওয়াকে কেন্দ্র করে লড়াইয়ে নেমে পড়েন। একে অপরকে বাঁশ, লাঠি, ইট পাটকেল নিয়ে আক্রমণ করেন।

এমন ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের ইলামবাজারের পাইকুনি এবং নৃপতি গ্রামের মধ্যে। দুই গ্রামের বাসিন্দাদের এই লড়াইয়ে আহত হয়েছেন কমপক্ষে আটজন। যাদের মধ্যে ছয় জনের আঘাত গুরুতর হওয়ায় তাদের ভর্তি করা হয় বোলপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার সূত্রপাত দিন কয়েক আগে থেকেই। অভিযোগ নৃপতি গ্রামের মাঠের ধান খেয়ে নেয় পাইকুনি গ্রামের ছাগল। এমন ঘটনার কয়েকদিন ধরে ঘটে আসার পর মঙ্গলবার ফের পাইকুনি গ্রামের ছাগল কয়েকজন মাঠে চরাতে এলে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে। তখন নৃপতি গ্রামের বাসিন্দারা পাইকুনি গ্রামের বাসিন্দাদের কেটে রাখা মাঠের ধান তুলে নিয়ে চলে যায়। এমন সময় দুই গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে শুরু হয় লড়াই।

পাইকুনি গ্রামের এক বাসিন্দারা জানিয়েছেন, “ছাগলে ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে এমন লড়াই শুরু হয়। আমরা ভেবেছিলাম এই ঘটনা নিয়ে যাতে কোনরকম দ্বন্দ্ব তৈরি না হয় তার জন্য মীমাংসা করা হবে। কিন্তু আমরা গ্রামের মাঠে যেতেই দেখি নৃপতি গ্রামের বাসিন্দারা বাঁশ, লাঠি নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন এবং আমাদের উপর চড়াও হয়।”

ঘটনার পর এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ালে ইলামবাজার থানার পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয় এলাকায়। তবে পুলিশের সামনেও দু’পক্ষের মধ্যে লড়াই লক্ষ্য করা যায়। এই ঘটনায় আহতদের কারোর মাথা ফেটেছে, কারোর হাত পায়ে আঘাত লেগেছে। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এই দুই গ্রাম্য এলাকায় রয়েছে চাপা উত্তেজনা।

আরো পড়ুন