ছিনতাইয়ের ছক কষে টাকা হাতানোর চেষ্টা, পুলিশি তৎপরতায় গ্রেপ্তার ১

ছিনতাইয়ের ছক কষে টাকা হাতানোর চেষ্টা, পুলিশি তৎপরতায় গ্রেপ্তার ১

একটি মাইক্রো ফাইনান্স কোম্পানির কর্মরত এক কর্মী রফিকুল শেখ পাইকর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন তার বেশ কিছু টাকা-পয়সা এবং অন্যান্য সরঞ্জাম ছিনতাই হয়েছে। পুলিশ সেই অভিযোগ নেয় এবং তদন্ত শুরু করে। কিন্তু তদন্ত শুরু করার সময় একাধিক অসঙ্গতি উঠে আসে। পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় তদন্ত করতে গিয়ে বিভিন্ন জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এই ঘটনায় সম্পূর্ণ অসঙ্গতি খুঁজে পান।

ওই কর্মী যে জায়গা থেকে টাকা পয়সার ছিনতাইয়ের অভিযোগ করেছিলেন সেই জায়গায় তিনি ছিলেন না বলেও জানা যায় তদন্তে। পাশাপাশি কর্মরত সিভিক ভলেন্টিয়ারদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায় এমন কোনও ঘটনা ঘটেনি। এরপরেই পুলিশ এই ঘটনার অন্যরকমভাবে তদন্ত শুরু করে। আর তাতেই একাধিক তথ্য উঠে আসে পুলিশের হাতে।রামপুরহাট মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সায়ন আহমেদ ও পাইকর থানার ওসি ইসরাইল শেখের নেতৃত্বে এই অভিযানে সফলতা পাওয়া যায়।

ঘটনার পর পুলিশ এই ঘটনায় ওই অভিযোগকারীই ভাই রাশিদুল সেখকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার কাছ থেকে এখনো পর্যন্ত এক লক্ষ টাকা এবং অন্যান্য একাধিক সরঞ্জাম উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। জানা গিয়েছে এই ঘটনায় অভিযোগকারী নিজেই ছক কষে ওই টাকা হাতানোর চেষ্টা করেছিলেন। ২ লক্ষ ৫০ হাজার ৫৮২ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ হয়। যদিও অভিযোগকারী এখনো পর্যন্ত ফেরার রয়েছেন। পুলিশ তার খোঁজ চালাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

রামপুরহাট এসডিপিও সায়ন আহমেদ জানিয়েছেন, একাধিক ক্ষেত্রে আমরা এই ঘটনায় অসঙ্গতি খুঁজে পাওয়ার পরেই তদন্ত শুরু করলেই জানতে পারি অভিযোগকারী নিজেই এমন সব কসেছেন। তার খোঁজ চালানো হচ্ছে। এখন যে ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে তাকে আগামীকাল আদালতে তোলা হবে এবং পুলিশি হেফাজত চাওয়া হবে।

আরো পড়ুন