জাঁকিয়ে শীত পড়লেও ফের বৃষ্টির পূর্বাভাস রাজ্যে

জাঁকিয়ে শীত পড়লেও ফের বৃষ্টির পূর্বাভাস রাজ্যে

নিজস্ব প্রতিবেদন : গত এক মাসের মধ্যে বেশ কয়েকবার পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে বৃষ্টির পর আকাশ পরিষ্কার হয়েছে। আকাশ পরিষ্কার হতেই জাঁকিয়ে শীত পড়েছে দক্ষিণবঙ্গে। তবে জাঁকিয়ে শীত করলেও এই শীত দীর্ঘস্থায়ী হবে না বলেই পূর্বাভাস দিচ্ছে হাওয়া অফিস। পাশাপাশি নতুন করে বৃষ্টির সম্ভাবনার কথাও জানানো হয়েছে।

দক্ষিণবঙ্গের কলকাতা সহ প্রতিটি জেলায় গত কয়েক দিনের তুলনায় তাপমাত্রার পারদ অনেকটাই নেমেছে। তাপমাত্রার পারদ সবচেয়ে বেশি নেমেছে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতেও। পশ্চিম অঞ্চলের অধিকাংশ জেলায় শুক্রবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ ১০ ডিগ্রির নিচে রয়েছে। আগামী তিনদিন এই তাপমাত্রার খুব একটা হেরফের লক্ষ্য করা যাবে না বলেই পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস।

শুক্রবার আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফ থেকে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, এদিন দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৪.৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ স্বাভাবিক। গত ২৪ ঘন্টায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৪.২ ডিগ্রী সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৩° কম।

শুক্রবার শ্রীনিকেতন হাওয়া অফিসের তরফ থেকে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, এদিন দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৮.৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ স্বাভাবিক। গত ২৪ ঘন্টায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২২.৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৩° কম। একইভাবে দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ নেমেছে বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম ও পূর্ব বর্ধমান শহর পশ্চিমাঞ্চলের বেশিরভাগ জেলায়।

তবে ইতিমধ্যেই উত্তর পশ্চিম ভারতে একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাব লক্ষ্য করা গিয়েছে। এর ফলে ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম থেকে ফের তাপমাত্রার পারদ বাড়তে শুরু করবে। পাশাপাশি এই পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে সিকিম এবং হিমালয়ের পার্বত্য এলাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনার পাশাপাশি ফেব্রুয়ারি মাসের ৪ এবং ৫ তারিখ দক্ষিণবঙ্গেও বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানানো হয়েছে। এর ফলে মাটি হতে পারে সরস্বতী পুজোর আনন্দ।

আরো পড়ুন