তারাপীঠে বন্ধ হল হোটেল

তারাপীঠে বন্ধ হল হোটেল

নিজস্ব প্রতিবেদন : রাজ্যের বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে বীরভূমে। পরিসংখ্যান দেখলে স্পষ্ট কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়া সহ দক্ষিণের কিছু জেলা বাদ দিলে পশ্চিম বর্ধমানের পরই সংক্রমনের নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বীরভূম। এই পরিস্থিতিতে বীরভূমের বিভিন্ন পৌরসভায় আংশিক লকডাউনের পথে হাঁটলো।

শনিবার প্রথম আংশিক লকডাউন জারি করে বোলপুর পৌরসভা। এর পরেই আংশিক লকডাউন জারি করে সিউড়ি পৌরসভা। এর কয়েক ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই একের পর এক দুবরাজপুর পৌরসভা এবং সাঁইথিয়া পৌরসভা আংশিক লকডাউন জারি করে।

দুবরাজপুর পৌরসভার এবং সাঁইথিয়া পৌরসভায় আগামীকাল অর্থাৎ ১০ জানুয়ারি সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে এই আংশিক লকডাউন। এই দুটি পৌরসভায় আংশিক লকডাউন চলবে দুপুর দুটো থেকে। আংশিক লকডাউন চলাকালীন ওষুধ এবং জরুরী পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত দোকানপাট ছাড়া বন্ধ থাকবে সমস্ত রকম দোকান এবং বাজার ঘাট।

অন্যদিকে একইভাবে তারাপীঠের সমস্ত হোটেল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সংক্রমণ কমানোর জন্য। শনিবার রাত্রি বেলায় বীরভূম জেলা প্রশাসনের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে তারাপীঠে সমস্ত হোটেল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তারাপীঠে এই হোটেল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত কার্যকর হচ্ছে এই রবিবার দুপুর ১২ টা থেকে।

এই প্রসঙ্গে বলে রাখা ভালো, বীরভূম জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে শনিবার করোনা সংক্রান্ত যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে তাতে লক্ষ্য করা গিয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় বীরভূমে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭০৪ জন। এই বিপুলসংখ্যক আক্রান্তের মধ্যে বীরভূম স্বাস্থ্য জেলায় একদিনে আক্রান্ত ৪৯২ জন এবং রামপুরহাট স্বাস্থ্য জেলায় একদিনে আক্রান্ত ২১২ জন। স্বাভাবিকভাবেই এই বিপুল আক্রান্তের সংখ্যা কপালে ভাঁজ ফেলছে জেলা প্রশাসনের।

আরো পড়ুন