তৃণমূলকে ভোট দিলেই মিলবে মুড়ি-ঘুঘনি

তৃণমূলকে ভোট দিলেই মিলবে মুড়ি-ঘুঘনি। আর এভাবেই প্রভাবিত করা হচ্ছে হাসন বিধানসভা কেন্দ্রের হবাতকুড়া এলাকার ভোটারদের। তবে এই ঘটনার এখনও কোনো অভিযোগ দায়ের হয়নি নির্বাচন কমিশনে, পাশাপাশি বিরোধী দলগুলিও কোনো প্রতিক্রিয়া মেলেনি। নির্বাচন বিধি ভেঙে বুথ থেকে কিছুটা দুরে ক্যাম্প অফিস থেকে ভোটারদের প্রভাবিত করার উদ্দেশে মুড়ি-ঘুঘনির টোটকা রীতিমতো নির্বাচন বিধি ভঙ্গের সামিল বলেই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল৷

তবে এই ঘটনার সত্যতা জানা যায় এক ভোটারের বক্তব্যে। ওই ভোটার জানান, তৃনমুল ভোট দিলেই মুড়ি-ঘুঘনি দিচ্ছে এলাকার নেতারা। তবে আগে ভোট দিয়ে আসতে হবে, তারপরই তৃণমূলের ক্যাম্প অফিস থেকে মুড়ি-ঘুঘনি মিলছে বলেও জানান তিনি।

এদিন বীরভূম ভোট শুরু হতেই বিভিন্ন দিক থেকে আসছে সংঘর্ষ-এর খবর। তবে হাসন কেন্দ্রের এই ঘটনা একেবারেই নির্বাচন বিধি ভঙ্গের সামিল। যদিও নির্বাচন কমিশনের নিয়ম বলছে, ভোটের আগে কোনও পন্য বা খাদ্য বস্তু বিলি করা যায় না৷ এতে ভোটারা প্রভাবিত হন৷

আরো পড়ুন