ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় অশনি, কোথায় কবে কখন বৃষ্টি, জানালো হাওয়া অফিস

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় অশনি, কোথায় কবে কখন বৃষ্টি, জানালো হাওয়া অফিস

নিজস্ব প্রতিবেদন : দীর্ঘ কয়েক দিনের তাপপ্রবাহের পর এখন বাংলা থেকে উধাও গরম। মূলত দিন কয়েকের টানা বৃষ্টির ফলে এই গরম আপাতত উধাও হয়েছে। অন্যদিকে আবার এরই মাঝে একটি ঘূর্ণিঝড় ধেয়ে আসার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে হাওয়া অফিসের তরফ থেকে। দক্ষিণ আন্দামান সাগরে তৈরি হয়েছে একটি নিম্নচাপ এবং সেই নিম্নচাপ থেকেই তা ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

যে ঘূর্ণিঝড় তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে তার প্রভাব বাংলার ওপর পড়তে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে। সাগরে আপাতত ঘূর্ণিঝড় তৈরি হওয়ার অনুকূল পরিবেশ বজায় রয়েছে। ফলে আজ অর্থাৎ বুধবার আন্দামান সাগরে তৈরি হবে এই ঘূর্ণাবর্ত। বুধবার তৈরি হওয়া এই ঘূর্ণাবর্ত শুক্রবারের মধ্যে নিম্নচাপে পরিণত হবে। সেই ঘূর্ণাবর্ত শক্তিশালী হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে।

আন্দামান সাগরে তৈরি হওয়া ওই ঘূর্ণাবর্ত ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হলে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর এবং মধ্য বঙ্গোপসাগর পেরিয়ে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে আসতে পারে। তবে শেষ আপডেট থেকে জানা যাচ্ছে, এই ঘূর্ণিঝড়ের অভিমুখ ওড়িশার দিকে হতে পারে। তবে ঘূর্ণিঝড়ের অভিমুখ ওড়িশার দিকে হলেও তার প্রভাব পড়বে বাংলায়, এমনটাও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মৌসম ভবনের পূর্বাভাস অনুযায়ী, তৈরি হওয়া নিম্নচাপ আগামী ৬ মে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে। তবে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়ার আগেই নিম্নচাপের প্রভাবে পার্শ্ববর্তী এলাকায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি লক্ষ্য করা যাবে। ইতিমধ্যেই বঙ্গোপসাগর এবং আন্দামান সাগরে মৎস্যজীবীদের যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

বুধবার রাজ্যের একাধিক জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির পাশাপাশি ঝোড়ো হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে আগামী শনিবার পর্যন্ত। বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকার কারণে আগামী শনিবার পর্যন্ত তাপমাত্রার তেমন পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাবে না। তবে বেশি পরিমাণে বাতাসে জলীয় বাষ্প থাকার কারণে অস্বস্তিকর পরিস্থিতি বজায় থাকবে।

আরো পড়ুন