নিজের ওয়ার্ডেই হার, সরানো হলো বীরভূমের দুই পৌরসভার প্রশাসককে

নিজের ওয়ার্ডেই হার, সরানো হলো বীরভূমের দুই পৌরসভার প্রশাসককে

নিজস্ব প্রতিবেদন : তৃতীয়বারের জন্য তৃণমূল সরকার রাজ্যের শাসনে আসার পর প্রশাসনিক স্তরে একাধিক রদবদল প্রক্রিয়া শুরু করেছে। রাজ্যের একাধিক জেলার পুলিশ থেকে প্রশাসনিক কর্তাদের স্থলাভিষিক্তকরণ চলছে। আর এসবের পাশাপাশি এবার বীরভূমের দুই পৌরসভার প্রশাসককে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো নবান্নের তরফ থেকে।

বুধবার নবান্নে তরফ থেকে বিজ্ঞপ্তি জারি করেন বীরভূমের দুই পৌরসভা রামপুরহাট এবং বোলপুরের দুই প্রশাসককে অপসারণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রামপুরহাট পৌরসভার প্রশাসক অশ্বিনী তেওয়ারি এবং বোলপুর পৌরসভার প্রশাসক সুশান্ত ভকতকে অপসারণ করা হলো। এই দুই প্রশাসক পদে বসলেন দুই মহিলা। রামপুরহাট পৌরসভায় প্রশাসক হিসাবে বসলেন মীনাক্ষী ভকত এবং বোলপুর পৌরসভায় প্রশাসক হিসাবে বসলেন পর্ণা ঘোষ।

কিন্তু কেন এই প্রশাসক পদ থেকে দুজনকে অপসারণ করা হলো? কারণ সম্পর্কে বিজ্ঞপ্তিতে কিছু উল্লেখ করা না হলেও রাজনৈতিক মহলের বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এই দুই পৌরসভায় দুই প্রশাসক নিজের ওয়ার্ডেই গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির থেকে কম ভোট পেয়েছেন। তারই কোপ হিসাবে তাদের সরানো হলো। আর একথা রামপুরহাট পৌরসভার প্রাক্তন প্রশাসক অশ্বিনী তেওয়ারি একপ্রকার স্বীকারও করে নিয়েছেন। তবে বোলপুর পৌরসভা প্রশাসক সুশান্ত ভকত নিজের শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়েছেন।

রামপুরহাট পৌরসভা এলাকায় গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি তৃণমূলের তুলনায় প্রায় ছয় হাজারের বেশি ভোট পেয়েছে। অন্যদিকে অশ্বিনী তেওয়ারির ওয়ার্ড অর্থাৎ ৭ নং ওয়ার্ডে বিজেপি তৃণমূলের তুলনায় ৮৩২ ভোটে এগিয়ে রয়েছে। এবিষয়ে অশ্বিনী তেওয়ারি জানিয়েছেন, “লোকসভা ভোটে রামপুরহাটে আমি হেরেছি। বিধানসভা ভোটে হেরেছি। এমনকি পৌরসভা এলাকাতেও হেরেছি। আমার ওয়ার্ডেও আমি হেরেছি। এই জন্য আমাকে বাদ দিয়েছে। তা ভালো। এখন আমাকে দল যেমনটা করতে বলবে তেমন করবো।”


তবে বোলপুর পৌরসভার প্রাক্তন প্রশাশক সুশান্ত ভকত জানিয়েছেন, “করোনার সময় শারীরিক অসুস্থতার কারণে আমি অব্যাহতি চেয়েছিলাম। দল আমাকে অব্যাহতি দিয়েছে। এখানে হার-জিতের কোন প্রশ্ন নেই। শারীরিক অসুস্থতার জন্য আমি পদত্যাগ করেছি।”

আরো পড়ুন