‘পৌর ভোটে বিজেপি বিপুলভাবে জয়ী হবে’, অনুব্রতর পাশেই বেফাঁস মুকুল

‘পৌর ভোটে বিজেপি বিপুলভাবে জয়ী হবে’, অনুব্রতর পাশেই বেফাঁস মুকুল

নিজস্ব প্রতিবেদন : বোলপুরে এসে অনুব্রত মণ্ডলের পাশে দাঁড়িয়েই বেফাঁস মুকুল রায়। শুক্রবার বোলপুরে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মুকুল রায়। সেই সময়ই তাকে প্রশ্ন করা হয়, আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনগুলিতে কি হবে? এই প্রশ্নের উত্তরে অনুব্রত মণ্ডলের পাশে দাঁড়িয়েই মুকুল রায় জবাব দেন, “এই পৌর নির্বাচনে সারা পশ্চিমবাংলায় বিপুল ভাবে ভারতীয় জনতা পার্টি জয়ী হবে।”

মুকুল রায়ের এহেন মন্তব্য স্বাভাবিকভাবেই অসংলগ্ন লাগতেই তাকে সংশোধন করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালানো হয়। কিন্তু তারপরেও সংলগ্ন হতে পারেননি রাজনীতির চাণক্য মুকুল রায়। তার ভুল শুধরে দেওয়া হলে তিনি আবার বলেন, “তৃণমূল তো বটেই। ভারতীয় জনতা পার্টি মানেই তৃণমূল।” মুকুল রায়ের মাত্র দুটি উত্তর এদিন তার সঙ্গে উপস্থিত থাকা তৃণমূল নেতাদের অস্বস্তিতে ফেলে। এমনকি অস্বস্তিতে পড়েন খোদ বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। যদিও অনুব্রত মণ্ডল পরে আবার এমনটা কেন হলো তা জানিয়েছেন।

অনুব্রত মণ্ডল পরে জানান, “মুকুলদা আর সেই মুকুল রায় নেই। মুকুল রায় ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছেন। উনি যে কথাগুলো বলেছেন সবই অসুস্থ হওয়ার জন্য। ঈশ্বরের কাছে চাইছি সুস্থ হোক। যে কথাগুলো বলেছে সেগুলো একটাও ঠিক নয়। কখন কি বলছে নিজেও জানে না। না হলে আমাকে বলে, এই ডাকবাংলোর মাঠটা কিনে মেলা করছিস? অথচ ও এখানে অনেক মিটিং করে গিয়েছে।”

মুকুল রায়ের রোগের বিষয়ে অনুব্রত মণ্ডল জানান, “ওর সোডিয়াম পটাশিয়াম শর্ট আছে। তাই আমি অনুরোধ করব এই ধরনের লোক যে দলেরই হোক না দেখানোই ভালো। উনি ভেতরে একটা কথা বলেছেন আর বাইরে অন্যটা বেরিয়েছে।” ঘটনার উদাহরণ টানতে গিয়ে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, ‘আমি মুকুল রায়কে জিজ্ঞেস করেছিলাম চব্বিশে কি হবে? তখন মুকুল রায় আমাকে জানান, ‘চব্বিশে বিজেপি গোটা ভারতবর্ষ থেকে শেষ হয়ে যাবে।’

অনুব্রত মণ্ডল আরও বলেন, “উনি হাঁটাচলা করলেই সোডিয়াম পটাশিয়াম ঠিক থাকে না। অনেকবার এইরকম বলেছে। পরশুও তো কোথায় এরকম বলেছিল। আসলে সোডিয়াম পটাশিয়াম শর্ট হলে, তখন কিন্তু ছয় মাস ভুলে যাবে। সেটাই হয়েছে। ওকে ফরেনে নিয়ে যেতে হবে। এখানে চিকিৎসা করে! আমেরিকা ট্যামেরিকা নিয়ে গেলে ঠিক হতে পারে।”

অনুব্রত মণ্ডল এটাও জানান, “শুনলাম ওর ছেলে নাকি নিয়ে যাবে বলছে। ওর ছেলের ইচ্ছে আছে নিয়ে যাবে। মুকুল রায়কে তো আপনারা আগেও দেখেছেন। আর এখন দেখেছেন? হাঁটতেও পারছে না। আমাকে ও যখনই বলল, ‘দিদি বলল বোলপুর থেকে ঘুরে আই’, তখনই বুঝলাম মাথা ঠিক নাই।’

আরো পড়ুন