বাদাম বিক্রেতার গাওয়া গান সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

বাদাম বিক্রেতার গাওয়া গান সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

বাদাম বাদাম দাদা কাঁচা বাদাম, আমার কাছে নাই গো বুবু ভাজা বাদাম… এই গানটি সোস্যাল মিডিয়ায় খুবই ভাইরাল হয়েছে। এমনকী সারা বিশ্বে কয়েক মিলিয়ন মানুষ দেখে ফেলেছেন। এখন মোবাইলে ফেসবুক, ইউটিউব, টিকটিক, মজ ইত্যাদি খুললেই বেজে উঠছে এই গান। কিন্তু যে মানুষটি এই গান করেছেন তিনি পেশায় একজন বাদাম বিক্রেতা। তাঁর নাম ভুবন বাদ্যকর। বীরভূম জেলার দুবরাজপুর ব্লকের অন্তর্গত লক্ষ্মীনারায়ণপুর পঞ্চায়েতের কুড়ালজুড়ি গ্রামের বাসিন্দা। তিনি একটি পুরনো মোটর সাইকেলে করে খালি পায়ে বিভিন্ন গ্রামে বাদাম বিক্রি করতে যান। এমনকী পাশের রাজ্য ঝাড়খণ্ডেও যান তিনি। বাদাম বিক্রির পাশাপাশি তিনি মানুষকে মনোরঞ্জন করার জন্য গানও করেন। আর বাদামওয়ালার গানের সুরের টানে ছুটে আসেন অনেকে। শুধু গান শোনা নয়, গানের পাশাপাশি তাঁর কাছে ক্রেতারা বাদামও কিনেন। তিনি সিটি গোল্ডের চেন, চুড়ি, হাতের বালা, মোবাইল ভাঙা, হাঁসের পালক, মাথার চুল ইত্যাদি নিয়ে বাদাম দেন ক্রেতাদের।

কিন্তু তিনি এসব সরঞ্জামের নাম দিয়ে তৈরি করে ফেলেছেন এমন একটি গান যা এখন সবার মুখে মুখে শোনা যাচ্ছে। সম্প্রতি বাদাম বিক্রেতা ভুবন বাদ্যকরের গাওয়া এই গান সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই অনেকেই ছুটে আসেন তাঁর বাড়িতে। অনেকে এখনও আসতে চাইছেন। এক কথায় রাতারাতি সেলিব্রিটি হয়ে যাবার মত বিষয়। কিন্তু রয়েছে তাঁর একটি মাটির খড়ের বাড়ি। তাও আবার ত্রিপল দেওয়া। বাড়িতে রয়েছেন স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক কন্যা সন্তান। ভুবনবাবু জানান, আমি প্রতিদিন বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে গান করতে করতে বাদাম বিক্রী করি। এই বাদাম বিক্রি করে আমার প্রতিদিন ২০০-২৫০ টাকা উপার্জন হয়। বিগত ১০ বছর ধরে বাদাম বিক্রি করছি। আমি বাদাম বিক্রি করতে যাবার সময় একটি গ্রামে এই গান করি। সেই সময় একটি ছেলে সেই গান ক্যামেরা করে সোস্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে দেয়। কিন্তু আমি সেই ছেলেকে চিনি না। শুনে খুব ভালো লাগছে যে আমার গাওয়া গান সারা বিশ্বে কয়েক মিলিয়ন মানুষ দেখে ফেলেছেন। যদি আমাকে কেউ সুযোগ দেন তাহলে আরো কিছু ভালো গান শোনাব। যদিও আমি কোনদিন গান শিখিনি। পাশাপাশি গ্রামের এক বাসিন্দা মিঠু খান জানান, ভুবন বাদ্যকর একজন বাদাম বিক্রেতা। তিনি বাদাম বিক্রি করতে যাওয়ার সময় একটি গান নিজে লিখেছেন এবং নিজেই সুর দিয়েছেন। আমাদের খুব ভালো লাগছে যে আমাদের ছোট্ট গ্রামে এমন এক প্রতিভা লুকিয়ে রয়েছে। অন্যদিকে ওয়াহিদ রাজা খান জানান, পুরো বিশ্বে ভুবন বাদ্যকরের গান ছড়িয়ে যাচ্ছে। মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষ ইন্টারনেটে তাঁর গান শুনছেন। এমনকী বাংলাদেশের টিকটিক স্টাররা তাঁর গান লিপসিং করে ভাইরাল করছেন। এতে আমরা খুবই গর্বিত। উল্লেখ্য, সম্প্রতি কয়েকটি গান করে ভাইরাল হয়েছেন এই জেলার রতন কাহার, রাণাঘাটের রানু মণ্ডল, ছত্তিসগড়ের শুকমার বাসিন্দা সহদেব দিরদো। এবার আরও একজন… তিনি হলেন বাদাম বিক্রেতা ভুবন বাদ্যকর।

আরো পড়ুন