বিজেপির সংখ্যালঘু নেতা শেখ সামাদ আজ থেকে হয়ে গেলেন তৃণমূল নেতা

বিজেপির সংখ্যালঘু নেতা শেখ সামাদ আজ থেকে হয়ে গেলেন তৃণমূল নেতা

নিজস্ব প্রতিবেদন : রাজ্যজুড়ে জানুয়ারি মাসের প্রথম থেকেই শুরু হয়েছে বিজেপি নেতাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়ার প্রবণতা। সেই প্রবণতা এসে পৌঁছায় বীরভূমেও। একসময় যে সংখ্যালঘু বিজেপি নেতা শেখ সামাদকে প্রথম সারিতে থেকে বিজেপিকে নেতৃত্ব দিতে দেখা গিয়েছিল সেই বিজেপি নেতা আজ থেকে হয়ে গেলেন তৃণমূল নেতা।

বীরভূম জেলা বিজেপির সংখ্যালঘু মোর্চার সভাপতি শেখ সামাদ দিন কয়েক আগেই বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ত্যাগ করেছিলেন। তখন থেকেই তাকে নিয়ে তৈরি হয়েছিল জল্পনা। গত দুদিন আগে তৃণমূলে তিনি যোগ দিচ্ছেন তা একপ্রকার নিশ্চিত করে বলে দেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। এরপরই রবিবার বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন বিজেপির এই সংখ্যালঘু নেতা।

রবিবার বোলপুরের তৃণমূল দলীয় কার্যালয়ে শেখ সামাদ তার সঙ্গী সাথীদের নিয়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন। তিনি তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পাশাপাশি দাবি করেছেন, তার সঙ্গে যোগ দিয়েছেন বিজেপির সংখ্যালঘু মন্ডলের অধিকাংশ সভাপতিরা। এছাড়াও জেলা জুড়ে তার যে সকল সংখ্যালঘু সাথী ছিলেন, যারা এতোদিন বিজেপির হয়ে কাজ করতেন তারাও আজ থেকে তৃণমূলের হয়ে কাজ শুরু করলেন বলে দাবি করেছেন তিনি।

শেখ সামাদের তৃণমূলে যোগ দেওয়া নিয়ে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বিজেপিকে কটাক্ষ করে বলেন, “শুধু বড় বড় পদ দিলেই হবে না। কাজ করার সুযোগ দিতে হবে। উন্নয়নের সঙ্গে থাকলে লাভ হবে। এই কথা মাথায় রেখেই শেখ সামাদ এবং তার সঙ্গী সাথীরা আজ তৃণমূলে যোগ দিলেন।”

অন্যদিকে তৃণমূলে যোগ দিয়েই বিজেপির এই প্রাক্তন নেতা শেখ সামাদ একেবারে হুংকার দিয়ে বলেন, “বিজেপিতে যারা নেতৃত্ব দেবার যোগ্য তাদের সম্মান নেই। তাই আগামী দিনে বীরভূম জেলার বিজেপির কি অবস্থা হবে তা কেবলমাত্র সময়ের অপেক্ষা।”

আরো পড়ুন