বীরভূমে থাবা বসালো ব্ল্যাক ফাঙ্গাস, আক্রান্ত এক মহিলা

বীরভূমে থাবা বসালো ব্ল্যাক ফাঙ্গাস, আক্রান্ত এক মহিলা

নিজস্ব প্রতিবেদন : একদিকে করোনা, অন্যদিকে আবার দোসর হয়ে হাজির ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। গোদের উপর বিষফোঁড়া হয়ে এবার এই ফাঙ্গাস থাবা বসালো বীরভূমে। আক্রান্ত এক মহিলার রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বীরভূমে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সন্ধান পাওয়া যেতেই আতঙ্ক বাড়ছে বাসিন্দাদের মধ্যে।

জানা গিয়েছে, রামপুরহাটের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের একের বাসিন্দা ৮৬ বছর বয়সী জামনাতোরা বিবি এই রোগে আক্রান্ত হয়ে রামপুরহাট মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন। তিনি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হওয়ার আগে করোনা আক্রান্ত হন। প্রথমে তাকে দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় করোনা চিকিৎসার জন্য। কিন্তু পরে তার শরীরে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের লক্ষণ দেখতে পাওয়া গেলে পুনরায় রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। সেখানে পরীক্ষা করে জানা যায় ওই মহিলা করোনার পাশাপাশি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসেও আক্রান্ত।

সূত্র মারফত এটাও জানা যাচ্ছে, ওই মহিলার ডায়াবেটিস এবং কিডনির সমস্যাও রয়েছে। এমত অবস্থায় তার চিকিৎসা নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। তবে স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে দুই রোগের চিকিৎসার জন্য সমস্ত রকম প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। তাকে প্রয়োজনীয় ওষুধ দেওয়া হচ্ছে।

ওই রোগী মূলত করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর তার চোখে কালো কালো ছাপ লক্ষ্য করা যায়। এরপর এই সন্দেহ তৈরি হয় এবং পরীক্ষা করা হয়। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হলে সঠিক সময়ে চিকিৎসা না করালে দৃষ্টিশক্তি হারাতে পারেন রোগী। এমনকি খুব বেশি দেরি হলে রোগীর মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।
চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ভিজা মাস্ক, একই মাস্ক পরিষ্কার না করে বারবার ব্যবহার করলে এই রোগ হতে পারে। যে কারণে এই রোগ থেকে দূরে থাকার উপায় হল সর্তকতা অবলম্বন করা। তবে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস নতুন কোনো রোগ নয়। এই ফাঙ্গাস বহু বছর ধরেই পরিবেশে রয়েছে। কিন্তু বর্তমান করোনাকালে হয়তো তা বেশি করে প্রভাব বিস্তার করছে।

আরো পড়ুন