ভাদু শেখ খুনের রেশ কাটতে না কাটতেই ফের এক তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য খুন!

ভাদু শেখ খুনের রেশ কাটতে না কাটতেই ফের এক তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য খুন!

গত ২১ মার্চ বীরভূমের রামপুরহাট থানার অন্তর্গত বগটুই গ্রামে খুন হন বরশাল গ্রামের তৃণমূল উপপ্রধান ভাদু শেখ। সেই খুনের প্রতিহিংসার ঘটনায় জ্বলে-পুড়ে দগ্ধ হয় ১০ জন। তবে এই ঘটনার ক্ষত কাটতে না কাটতেই ফের এক তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যের রহস্য মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো বীরভূমে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মৃত ওই তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যদের পরিবারের অভিযোগ খুন করা হয়েছে।

এবারও সেই রহস্য মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো রামপুরহাট মহকুমা এলাকায়। গতকাল অর্থাৎ বুধবার রাতে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় মৃত তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যের নাম কাজী নুরুল হাসান ওরফে আকাশ। তার বাড়ি ময়ূরেশ্বর এবং তিনি ময়ূরেশ্বর পঞ্চায়েতের পঞ্চায়েত সদস্য ছিলেন। এই ঘটনাটি ঘটে মল্লারপুর থানার অন্তর্গত খড়াসিনপুরে।

বুধবার রাতে মৃত ওই পঞ্চায়েত সদস্যের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয় খড়াসিনপুরে। এরপর তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয় রামপুরহাট গভরমেন্ট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে। হাসপাতালে ভর্তি করার সঙ্গে সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের খবর দেওয়া হয়। পরিবারের সদস্যরা তড়িঘড়ি হাসপাতালে ছুটে আসেন। তবে রাতেই মৃত্যু হয় আকাশের।

জানা যাচ্ছে, বুধবার বিকাল বেলায় বাড়ি থেকে বের হয়ে মল্লারপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন মৃত পঞ্চায়েত সদস্য আকাশ। এরপর রাত হয়ে যাওয়াতেও বাড়ি না ফেরার কারণে তার স্ত্রী মৌসুমী খাতুন ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন। পরে পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয় আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন কাজী নুরুল হাসান ওরফে আকাশ।

মৃত পঞ্চায়েত সদস্যের স্ত্রী মৌসুমী খাতুন জানিয়েছেন, এই ঘটনা দুর্ঘটনা বলা হলেও এটা খুনের ঘটনা। কারণ দুর্ঘটনা হলে শরীরে কোথাও কোনো না কোনো দাগ থাকতো। কেবলমাত্র মাথার পিছনে আঘাত করা হয়েছে। কান নাক দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি দলীয় কোন্দলকেই দায়ী করেছেন।

আরো পড়ুন