মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা নিয়ে নয়া ঘোষণা পর্ষদের, মানতে হবে পরীক্ষার্থী ও স্কুলগুলিকে

মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা নিয়ে নয়া ঘোষণা পর্ষদের, মানতে হবে পরীক্ষার্থী ও স্কুলগুলিকে

নিজস্ব প্রতিবেদন : রাজ্যে ধীরে ধীরে করোনা সংক্রমণ কমতেই নভেম্বর মাসের ১৬ তারিখ থেকে পুনরায় খুলে দেওয়া হয়েছে স্কুলের দরজা। স্কুলের দরজা খুলে দেওয়ার পাশাপাশি মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে পর্ষদ ও সংসদের শুরু হয়েছে পর্যালোচনা। স্কুল খোলার আগেই পর্ষদ এবং সংসদের তরফ থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের সূচি ঘোষণা করা হয়েছে।

তবে সম্প্রতি করোনার নতুন প্রজাতি ওমিক্রণ সংক্রমণ ছড়াতে শুরু করায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে নতুন করে শুরু হয়েছে জল্পনা। এমত অবস্থায় যদি লিখিত পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হয় তাহলে কীভাবে মূল্যায়ন করা হবে তার বিকল্প পথ বেছে রেখেছে রাজ্য শিক্ষা দপ্তর। পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হলে টেস্ট পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়নের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা হয়ে উঠতে পারে।

এমত অবস্থায় মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা নিয়ে পর্ষদ নয়া ঘোষণা করল। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার টেস্ট পরীক্ষা হবে ৫০ নম্বরের। কিন্তু মাধ্যমিক পরীক্ষার টেস্ট কত নম্বরের নেওয়া হবে তা নিয়ে ছিল ধোঁয়াশা। এই ধোঁয়াশা দূর করার জন্য পর্ষদের তরফ থেকে নতুন এই ঘোষণায় জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, প্রতিটি বিষয়ের ক্ষেত্রে ৯০ নম্বরের টেস্ট পরীক্ষা নিতে হবে।

পাশাপাশি পর্ষদের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ১৩ থেকে ২৪ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রতিটি স্কুলকে তাদের পরীক্ষার্থীদের টেস্ট পরীক্ষা নিয়ে নিতে হবে। পর্ষদের এই সকল একাধিক নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে রাজ্যের প্রতিটি স্কুল এবং ওই সকল স্কুলের পরীক্ষার্থীদের।

মূলত গত দু’বছর ধরে করোনা সংক্রমণের কারণে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে চরম সমস্যা তৈরি হয়েছে। কখনো পরীক্ষা মাঝপথেই বাতিল হয়েছে আবার কখনো পরীক্ষা পাকাপাকিভাবে বাতিল করতে হয়েছে। পরীক্ষা এই ভাবেই বাতিল হওয়ার কারণে পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন নিয়ে তৈরি হয়েছে নানান সমস্যা। সেই সকল সমস্যা যাতে দূর করা যায় তার জন্যই এবার আগাম একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য শিক্ষা দপ্তর।

আরো পড়ুন