মা ও শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার বাড়ি থেকে, পলাতক শশুর বাড়ীর লোকজন

মা ও শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার বাড়ি থেকে, পলাতক শশুর বাড়ীর লোকজন

মা ও শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার বাড়ি থেকে, পলাতক শশুর বাড়ীর লোকজন ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমান জেলার খণ্ডঘোষ থানার অন্তর্গত অমর পুর গ্রামে।
উলেখ্য স্থানীয় গ্রামবাসীদের সূত্রে জানা যায় ২০১৩ সালে সুষমা মালিকের সঙ্গে সমীর মালিকের সামাজিক বিবাহ হয়।
বিবাহের তিন বছর পর থেকে মানসিক অত্যাচার ও মারধর করা হতো,অত্যাচার সহ্য করতে না পারায় প্রায় দিনই বাপের বাড়ি চলে আসতে বাধ্য হয়।
এদিন পূর্ব বর্ধমান জেলার পুলিশের ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক জানান,গতকাল রাতে স্বামী স্ত্রীর সঙ্গে পারিবারিক অশান্তি হয়,তার পরে সাত বছরের পুত্র সন্তানকে হত্যা করে নিজে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।
ভোর চারটে সময় পুলিশের কাছে খবর আসতেই অমর পুর গ্রামে গিয়ে শিশু ও মায়ের মৃতদেহ উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজের পুলিশ মর্গে পাঠানো হয়।
খুন না আত্মহত্যা ময়নাতদন্তের পরই জানা যাবে, তবে এই মুহূর্তে মৃতা সুষমা মালিকের স্বামী শশুর ও শাশুড়ি পলাতক।
কার্যতঃ পুরো বিষয়টি তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরো পড়ুন