মুড়ি-মুড়কির মতো বোমাবাজি বীরভূমের খোঁজ মহঃপুরে

মুড়ি-মুড়কির মতো বোমাবাজি বীরভূমের খোঁজ মহঃপুরে

লাল্টু : ‘বারুদের স্তূপে পরিণত হয়েছে বীরভূম’। বীরভূমের একাধিক এলাকায় সদ্যসমাপ্ত হওয়া বিধানসভা নির্বাচনের আগে এবং পরে বোমাবাজির মতো ঘটনা চোখে পড়ছে, পাশাপাশি পুলিশের তরফ থেকে উদ্ধার করা হচ্ছে বোমা। কিন্তু বর্তমানে যে ছবি ধরা পড়েছে তা প্রমাণ করে বোমা বারুদ এখন যেন ইঁট পাথরে পরিণত হয়েছে! এমনটাই মত বিরোধীদলের নেতা নেত্রীদের।

শুক্রবার দুপুর থেকে বীরভূমের দুবরাজপুর থানার অন্তর্গত খোঁজ মহঃপুর গ্রাম উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভোট-পরবর্তী হিংসার কারণে। যেখানে দেখা যায় ইট পাথরের মতো বোমা ছুঁড়ছে দুষ্কৃতীরা। চতুর্দিকে বোমার আওয়াজ আর ধোঁয়া। আর এমন ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে আতঙ্কিত ওই গ্রাম এবং তার পার্শ্ববর্তী এলাকার মানুষেরা।

এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ওই গ্রামের তৃণমূল নেতা শেখ আজম এই হামলার মূল কারিগর। দুবরাজপুর থানার এসআই অমিত চক্রবর্তী খুনের ঘটনায় সেই সময় এই তৃণমূল নেতা শেখ আজমের নাম উঠে এসেছিল। কিন্তু তিনি হঠাৎ কেন এমন বোমাবাজি শুরু করলেন এলাকায়?

স্থানীয় সূত্রে জানা যাচ্ছে, ওই তৃণমূল নেতা শেখ আজমের ধারণা তৃণমূলের কিছু মানুষজন সংযুক্ত মোর্চা প্রার্থী ফরওয়ার্ড ব্লকের বিজয় বাগদীকে ভোট দিয়েছে। আর এই ধারণার ভিত্তিতেই গ্রামের লোকেদের উপর বোমাবাজি শুরু করে শেখ আজমের লোকজন। গতকাল বিকালবেলা দুবরাজপুর থানার পুলিশ গিয়ে বোমাবাজি বন্ধ করলেও ফের রাত বাড়তেই মুড়ি-মুড়কির মতো পড়তে থাকে বোমা।


প্রসঙ্গত, এর আগে দুবরাজপুর থানা এলাকায় এত বোমা পড়েছে বলে কারোর জানা নেই। আশেপাশের গ্রামের মানুষজন ভয়ে ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছেন।
এমনকি রাতেও এত পরিমাণ বোমা পড়েছে যে পুলিশকে গ্রামের বাইরেই থাকতে হয়। পরে বিশাল পরিমাণ পুলিশ গিয়ে অবস্থা আয়ত্তে আনে। এলাকায় রয়েছে টানটান উত্তেজনা। গ্রামের মানুষের চোখে মুখে আতঙ্কের ছাপ।

আরো পড়ুন