রাতের ট্রেনে মহিলাদের বাড়ছে নিরাপত্তা, বিশেষ ব্যবস্থা রেলের

রাতের ট্রেনে মহিলাদের বাড়ছে নিরাপত্তা, বিশেষ ব্যবস্থা রেলের

নিজস্ব প্রতিবেদন : রেল পরিষেবা হলো ভারতীয়দের কাছে গণমাধ্যমের অন্যতম মেরুদন্ড। দেশের প্রায় প্রতিটি মানুষই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাওয়ার জন্য ট্রেনের উপর নির্ভরশীল। যেখানে বিপুলসংখ্যক মানুষ রেল পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত, সেই জায়গায় এর নিরাপত্তার দিকে প্রতিনিয়ত দেওয়া হচ্ছে জোর।

নিরাপত্তার দিক দিয়ে জোর দেওয়ার ক্ষেত্রে এবার মহিলাদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সম্প্রতি রানাঘাট বনগাঁ শাখার নবরায়নগর স্টেশনের কাছে এক তরুণীকে ট্রেন থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসে পূর্ব রেল। তারপরেই পূর্ব রেলের তরফ থেকে রাতে ট্রেনে মহিলাদের নিরাপত্তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

নিরাপত্তায় পরিপ্রেক্ষিতে রবিবার সন্ধ্যায় পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী জানিয়েছেন, “এবার থেকে সব জায়গায় থাকবে আরপিএফ। আমরা এমনটাই ঠিক করেছি।” কারণ হিসেবে তিনি যা বোঝাতে চেয়েছেন তাতে তারা আর জিআরপির উপর ভরসা রাখতে পারছেন না।

প্রতিদিন রাত্রি ৯টা ৬ মিনিটে রানাঘাট রেল স্টেশন থেকে বনগাঁ-র উদ্দেশ্যে একটি লোকাল ট্রেন ছাড়ে। রাতের এই লোকাল ট্রেনে মহিলা যাত্রীদের নিরাপত্তায় মহিলা কামরায় জিআরপি থাকার কথা ছিল। কিন্তু গত শুক্রবার রাতের ওই ট্রেনটিতে ছিলনা কোনো রকম নিরাপত্তারক্ষী।

ট্রেনে নিরাপত্তারক্ষী থাকলে নবরায়নগর স্টেশনের কাছে মদ্যপ অবস্থায় ওই দুই যুবক ২১ বছর বয়সী ওই তরুণীকে উত্তপ্ত ও শ্রীলতাহানি করে ট্রেন থেকে ছুঁড়ে দেওয়ার সাহস পেত না। ঘটনার পর এই রকমের নানান প্রশ্ন ওঠার পরিপ্রেক্ষিতে পূর্ব রেলের তরফ থেকে প্রতিটি রাতের ট্রেনে মহিলা কামরায় আরপিএফ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরো পড়ুন