লক্ষীর সাজে লক্ষীর ভান্ডারের ফর্ম বিলি

লক্ষীর সাজে লক্ষীর ভান্ডারের ফর্ম বিলি

ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সম্প্রতি রাজ্য জুড়ে চলছে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের ফর্ম ফিলাপ। এই প্রকল্পের আওতায় রাজ্যের মহিলারা, যাদের বয়স ২৫ থেকে ৬০ বছর তারা হাত খরচের জন্য টাকা পাবেন।

প্রকল্পের ঘোষণা অনুযায়ী সাধারণ শ্রেণীর মহিলারা পাবেন মাসে মাসে ৫০০ টাকা এবং তপশিলি জাতি ও উপজাতি শ্রেণীর মহিলারা মাসে মাসে ১০০০ টাকা করে। ঘরে বসে এই টাকা পাওয়ার মত সুযোগ কেউই হাতছাড়া করতে চাইছেন না। যে কারণে যে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি চলছে সেখানে এই প্রকল্পে প্রতিনিয়ত ফরম ফিলাপ করার জন্য ভিড় বাড়ছে।

আবার এই প্রকল্পের জনপ্রিয়তা বাড়াতে ফরম ফিলাপের ক্যাম্পগুলিতে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন সাজ অবলম্বন করতে দেখা যাচ্ছে প্রশাসনের তরফ থেকে। সম্প্রতি সাঁইথিয়াতেও দেখা গেল এই প্রকল্পের ফর্ম ফিলাপের সময় দুই গৃহবধূকে লক্ষ্মীর সাজে সাজিয়ে আসনে বসাতে।

বীরভূমের সাঁইথিয়া পৌরসভার অন্তর্গত ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের কমিউনিটি হলে শনিবার এই দুয়ারে সরকার কর্মসূচি চলাকালীন লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের ফর্ম ফিলাপের ক্ষেত্রে এই অভিনবত্ব লক্ষ্য করা যায়। যেখানে দেখা যায় দুজন গৃহবধূ লক্ষ্মীর সাজে সেজে ফর্ম দিচ্ছেন এবং সেই ফর্ম গ্রাহকরা গ্রহণ করে ফিলাপ করে পুনরায় জমা দিচ্ছেন।

লক্ষ্মীর সাজে বসে থাকা দুই গৃহবধুর মধ্যে একজন হলেন তনুশ্রী মন্ডল। তার কথা অনুযায়ী, মানুষ যাতে একটু উৎসাহিত হয়, আনন্দিত হয় তার জন্য আমরা এই লক্ষ্মীর সাজে সেজে ফর্ম করছি এবং যারা ফিলাপ করে জমা দিচ্ছেন ফর্ম জমা নিচ্ছি।

লক্ষ্মীর ভান্ডার ফর্ম বিলির কাউন্টারে এইভাবে স্বয়ং লক্ষ্মীর সাজে গৃহবধূদের বসে থাকতে দেখে সাধারণ মানুষেরাও আপ্লুত হয়েছেন। দূরদূরান্ত থেকে লক্ষীর ভান্ডার ফরম নিতে আসার পাশাপাশি এই দুজনকে দেখতেও ভিড় জমাতে দেখা যায় এলাকার বাসিন্দাদের।

আরো পড়ুন