সমুদ্র বাঁধের উপর দ্রুত গতিতে ছুটছে যানবাহন, রাজ্যে চালু হচ্ছে মেরিন ড্রাইভ

সমুদ্র বাঁধের উপর দ্রুত গতিতে ছুটছে যানবাহন, রাজ্যে চালু হচ্ছে মেরিন ড্রাইভ

নিজস্ব প্রতিবেদন : রাজ্যে যেসকল পর্যটন কেন্দ্র রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম এবং জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র হল দীঘা। বছরের বিভিন্ন সময় দেশ-বিদেশ থেকে পর্যটকদের আগমন ঘটে এই সমুদ্র সৈকতে। আর এবার এই সমুদ্র সৈকতে সংযুক্ত হতে চলেছে মেরিন ড্রাইভ। যারা দেশের মুকুটে নতুন পালক।

দীঘায় দিঘা কাঁথি মেরিন ড্রাইভ নির্মাণের কাজ বহু প্রতীক্ষিত। তবে এবার সেই প্রতীক্ষার অবসান ঘটতে চলেছে। ঘূর্ণিঝড়, করোনা সহ বিভিন্ন কারণে এই মেরিন ড্রাইভ নির্মাণের কাজ বারংবার থমকে যায়। তবে গত কয়েক মাস ধরে ইঞ্জিনিয়াররা রাতদিন এক করে অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। তাদের এই পরিশ্রমের ফল হিসাবে এই মেরিন ড্রাইভ নির্মাণ প্রায় শেষের দিকে।

এই মেরিন ড্রাইভ চালু হলে সৈকত শহরে নতুন দিগন্ত তৈরি হবে। সৈকত সরণি ধরে উদয়পুর থেকে নিউ দীঘা, ওল্ড দিঘা, দীঘা মোহনা, নায়েকালি, শংকরপুর, জলধা, তাজপুর, মন্দারমনি, শৈলা হয়ে কাঁথি পৌঁছানো কেবলমাত্র সময়ের অপেক্ষা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২০১৫ সালে দীঘা থেকে কাঁথি পর্যন্ত এই মেরিন ড্রাইভ প্রকল্পের ঘোষণা করেছিলেন। এই প্রকল্পকে বাস্তবায়িত করার জন্য রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ৭০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়। এই প্রকল্পের মধ্য দিয়ে সমুদ্র বাঁধের উপর ৩০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। সেই কাজই এখন শেষের দিকে।

এই সৈকত সরণি নির্মাণ হয়ে গেলে পর্যটকদের কাছে এই সৈকত সরণি আলাদা গুরুত্বপূর্ণ সরণি হিসাবে পরিগণিত হবে। কারণ একটি রাস্তা দিয়েই সমুদ্রের মাঝে তৈরি হওয়া বাঁধের উপর অনায়াসে ছুটে যাওয়া যাবে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায়। পর্যটকদের সামনে অনায়াসে বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনের নতুন নতুন রাস্তা খুলে যাচ্ছে এই সৈকত সরণির মধ্য দিয়ে। আর এই সৈকত সরণি এলাকার বাসিন্দাদের মানোন্নয়ন ঘটাবে তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই।

আরো পড়ুন