‘সাত পাকের দরকার নেই, এক পাকেই হবে’, বিয়ের পিঁড়িতে বসে চিৎকার মৌনির

‘সাত পাকের দরকার নেই, এক পাকেই হবে’, বিয়ের পিঁড়িতে বসে চিৎকার মৌনির

নিজস্ব প্রতিবেদন : চলছে বিয়ের মরসুম। বিয়ের মরসুম আসা মানেই নানান ধরনের মজার মজার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে দেখা যায়। সাধারণদের ক্ষেত্রে যেমন এই মজার মজার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়, ঠিক তেমনই সেলিব্রিটিদের ভিডিও-ও ভাইরাল হয়। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে সম্প্রতি মৌনির বিয়ের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সেলিব্রেটিদের এই বিয়েতে গাঁটছড়া বন্ধন হয় বাঙালি এবং মালায়ালির। মৌনি রায় ও সূরজ নামবিয়ার এই বিয়েতে প্রথমে দক্ষিণী রীতি মেনে বিয়ে হয় এবং পরে সন্ধ্যাবেলায় বাঙালি মতে বিয়ে হয়। গোয়ার হিলটন রিসর্টে কাছের বন্ধুদের নিয়ে বসে ছিল এই বিয়ের আসর। তবে বাঙালি মতে বিয়ে করলেও মৌনির হাতে কেবলমাত্র শাখা পলা ছাড়া বাঙালিয়ানার লেশমাত্র ছিল না।

মৌনিকে বিয়ের আসরে দেখা যায় লাল লেহেঙ্গা পরে। এর পাশাপাশি লক্ষ্য করা যায় মাথায় বড় মাঙ্গটিকা, গা ভর্তি কুন্দনের জুয়েলারি, মাথায় লাল সোনালি ওড়না। যেখানে সংস্কৃত শব্দ লেখা ছিল ‘আয়ুষ্মতী ভব:’। তবে সাজপোশাকে বাঙালিয়ানা থাকলেও কোচবিহারের রায় পরিবারের এই মেয়েটি বাঙালি আচার-অনুষ্ঠান মেনে বিয়ে সারেন। সেই মুহূর্তের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড হতে ভাইরাল হয়।

পান পাতায় মুখ ঢেকে বিয়ের পিঁড়িতে চড়ে বরের কাছে আসার সময় ভয়ে বেহাল হতে দেখা যায় মৌনিকে। যে ঘটনা অন্যান্যদের ক্ষেত্রেও হতে লক্ষ্য করা যায়। পিঁড়িতে চড়ে রীতিমতো চিৎকার করে ওঠেন তিনি। সাহায্যের জন্য অন্যদের এগিয়ে আসতে আর্জি জানানোর পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘সাত পাকের দরকার নেই, এক পাক হলেই হবে’।

আসলে বিয়ের পিঁড়িতে বসে যখন তাকে নিয়ে আসা হচ্ছিল তখন পড়ে যাওয়ার মতো ভয় তৈরি হয়েছিল তার মধ্যে। সেই সময়ই তিনি সাত পাক ভুলে এক পাকেই বিয়ের এই রীতি সেরে ফেলে নেওয়ার জন্য চিৎকার করেন। যদিও তার বন্ধু, দাদা ভাইরা আশ্বস্ত করে বলেন, কিচ্ছু হবে না। সব ঠিক আছে।

আরো পড়ুন