স্কুল খোলার দাবিতে বৃষ্টি মাথায় ২০০০ কিমি সাইকেল যাত্রা শিক্ষকের

স্কুল খোলার দাবিতে বৃষ্টি মাথায় ২০০০ কিমি সাইকেল যাত্রা শিক্ষকের

নিজস্ব প্রতিবেদন : করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেতেই রাজ্যে ফের একবার বন্ধ হয়ে যায় স্কুল সহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। করোনার ধাক্কায় বারংবার সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এই শিক্ষা ব্যবস্থা। গত দু’বছর ধরে প্রাক-প্রাথমিক থেকে অষ্টম শ্রেণির পড়ুয়ারা এখনো পর্যন্ত স্কুলের মুখ দেখতে পায় নি।

তবে সম্প্রতি সংক্রমণ কিছুটা কমতে থাকায় এবং করোনা বিধিনিষেধ শিথিল হওয়ার দরুন রাজ্যের বেশ কিছু জায়গায় পুনরায় স্কুল খুলে দেওয়ার দাবি তোলা হচ্ছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠন ছাড়াও অভিভাবকরাও এমন দাবি তুলছেন। আর এবার সর্বস্তরের পড়ুয়াদের জন্য স্কুল খুলে দেওয়ার দাবিতে ২০০০ কিলোমিটার সাইকেল যাত্রা শুরু করলেন এক শিক্ষক।

দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিংয়ের সুন্দরবনের প্রবেশদ্বারে অবস্থিত একটি মিশনারি স্কুলের শিক্ষক পাপ্পু রায় কেন্দ্র এবং রাজ্যের কাছে স্কুল খুলে দেওয়ার আবেদন জানানোর জন্য এই সাইকেল যাত্রা শুরু করেছেন। তিনি গত ২০ জানুয়ারি নিজের বাড়ি বারুইপুর থানার অন্তর্গত বেগমপুর কলোনি থেকে ভোর সাড়ে চারটের সময় নিজের যাত্রা শুরু করেন।

যাত্রা শুরু করার পর তিনি ইতিমধ্যেই সাড়ে ৫০০ কিলোমিটারের বেশি যাত্রা করে বিভিন্ন জেলা পার করে বীরভূম এবং মালদা অতিক্রম করে ফেলেছেন। তার লক্ষ্য হলো পাহাড়ে পৌঁছে যাওয়া। এই ভাবেই তিনি রাজ্যের প্রতিটি জেলা সাইকেলিং করে স্কুল খোলার অনুরোধ তুলে ধরছেন সরকারের কাছে।

পাপ্পু রায় জানিয়েছেন, “আমার লক্ষ্য হলো দার্জিলিং। তারপর সেখান থেকে নেমে ফেরার সময় বাকি জেলাগুলি ঘুরে আসব এবং আমি আমার বার্তা সকলের কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করব।” তার কথায়, গত দু’বছর ধরে বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। পড়াশুনা চলছে না। সেই জন্য যাতে সরকার এই সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি খুলে দেওয়ার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করে।

সম্প্রতি এই শিক্ষকের সাইকেল যাত্রা শুরু হওয়ার পর থেকেই পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাব শুরু হয়েছে রাজ্যে। এর ফলে তার যাত্রা বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে বৃষ্টির কারণে, তবে বৃষ্টি এবং অন্যান্য প্রাকৃতিক প্রতিকূলতার সামনে তার সাইকেলের প্যাডেল থেমে যায়নি। তার সাইকেলের প্যাডেল চলেছে নিজের ছন্দেই।

আরো পড়ুন