“স্বপ্নপূরণ” প্রকল্পের মাধ্যমে শিশু ও বয়স্কদের আহারের ব্যবস্থা

“স্বপ্নপূরণ” প্রকল্পের মাধ্যমে শিশু ও বয়স্কদের আহারের ব্যবস্থা

শাস্ত্র অনুযায়ী পিতৃপুরুষের আত্মার শান্তির উদ্দেশ্যে এবং তাদের আশীর্বাদ কামনায় দান-ধ্যান ও অতিথিভোজন অনুষ্ঠান করে থাকেন অনেকে। সাধারণত মৃত ব্যক্তির সন্তানরা কিংবা আত্মীয়-স্বজনরা এই অনুষ্ঠান পালন করে থাকেন। কিন্তু দুবরাজপুরের হেতমপুর গ্রামে এক অন্য চিত্র দেখা গেল। দুবরাজপুরের এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা প্রচেষ্টার উদ্যোগে “স্বপ্নপূরণ” প্রকল্পের মাধ্যমে শিশু ও বয়স্কদের আহারের ব্যবস্থা করা হল হেতমপুর দক্ষিণা কালী মন্দিরের সন্নিকটে। এদিন শিশু ও বয়স্ক মিলে মোট ৬০ জনকে ভাত, ডাল, দুটি তরকারি এবং চাটনি খাওয়ানো হয়। প্রচেষ্টা সংস্থার সদস্য অভীক মিশ্র জানান, আমাদের সংস্থার এক সদস্যের জেঠু শঙ্করসাধন গুপ্তার আজ মৃত্যু বার্ষিকী। তাই তাঁরা আজকের দিনে চেয়েছিলেন গরিব কিছু বাচ্চা ও বয়স্কদের খাওয়াতে। তাই আমরা দুবরাজপুর থেকে ছুটে এসেছি হেতমপুর গ্রামে। এখানে আমরা বাচ্চা ও বয়স্ক মিলে ৬০ জনকে খাওয়ালাম এবং এই স্বপ্নপূরণ প্রকল্পের মাধ্যমে তাঁদের স্বপ্ন পূরণ করলাম। তিনি আরো জানান, আমরা এই সংস্থার বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে গত ১৬ এপ্রিল ঘোষনা করেছিলাম স্বপ্ন পূরণ প্রকল্পের।

আরো পড়ুন