হাড় কাঁপানো শীতে কাঁপছে বাংলা, তবে এই দিন থেকেই ফের বৃষ্টি

হাড় কাঁপানো শীতে কাঁপছে বাংলা, তবে এই দিন থেকেই ফের বৃষ্টি

নিজস্ব প্রতিবেদন : গত সপ্তাহে টানা দিন পাঁচেক পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে মেঘলা আকাশ, বৃষ্টির পর অবশেষে অবসান ঘটেছে ঝঞ্ঝার। এই ঝঞ্ঝা কাটতেই জাঁকিয়ে শীত পড়তে শুরু করেছে। হু হু করে তাপমাত্রার পারদ পড়েছে দক্ষিণবঙ্গের অধিকাংশ জেলায়। তবে এরই মাঝে ফের বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে হাওয়া অফিসের তরফ থেকে।

পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে মেঘ কেটে যাওয়ার পর রবিবার থেকেই ধীরে ধীরে নামতে শুরু করেছে তাপমাত্রা। সবচেয়ে বেশি শীত, যা একেবারে হাড় কাঁপানো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে। বিশেষ করে বীরভূম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়াতে। পাশাপাশি তাপমাত্রার পারদ নেমেছে কলকাতাতেও। তবে এই শীত দীর্ঘস্থায়ী হবে না বলেই জানাচ্ছে হাওয়া অফিস।

আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফ থেকে বুধবার আবহাওয়া সংক্রান্ত যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে তাতে জানানো হয়েছে, এদিন দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ১° কম। গত ২৪ ঘন্টায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৩.১ ডিগ্রী সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৩° কম।

আলিপুর হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী বৃহস্পতিবার থেকেই তাপমাত্রার পারদ ঊর্ধ্বমুখী হবে। এর পাশাপাশি শনিবার বিক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন জায়গায় হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। রবিবার বৃষ্টির পূর্বাভাস না থাকলেও আকাশ মেঘলা থাকবে বলে জানানো হয়েছে এবং সোমবার ও মঙ্গলবার বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির দেখা মিলবে বলে পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে।

শ্রীনিকেতন হাওয়া অফিসের তরফ থেকে বুধবার আবহাওয়া সংক্রান্ত যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে তাতে জানানো হয়েছে, এদিন দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৩° কম। গত ২৪ ঘন্টায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২২.৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ২° কম।

এর পাশাপাশি শ্রীনিকেতন হাওয়া অফিসের তরফ থেকে পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, রবিবার থেকে বিক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন জায়গায় মেঘলা আকাশ লক্ষ্য করা যাবে। এরপরই সোমবার থেকে বিক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন প্রান্তে শুরু হবে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি। নতুন করে এই বৃষ্টির পূর্বাভাস তৈরি হয়েছে পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে।

আরো পড়ুন