‘২০১৯ কিন্তু সময়ের অপেক্ষা’, পৌর ভোটের আগে কেন হঠাৎ লিখলেন দেবাংশু

‘২০১৯ কিন্তু সময়ের অপেক্ষা’, পৌর ভোটের আগে কেন হঠাৎ লিখলেন দেবাংশু

নিজস্ব প্রতিবেদন : রাজ্যজুড়ে এখন শুরু হয়েছে ভোট উৎসব। আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি রাজ্যের ১০৮টি পৌরসভার নির্বাচন রয়েছে। তবে এই নির্বাচনের আগেই হঠাৎ ফেসবুকে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন তৃণমূলের মুখপাত্র তথা তৃণমূল যুব সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু ভট্টাচার্য। এমন বিস্ফোরক মন্তব্যের কারণ কি?

পৌরসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি সম্প্রতি মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার প্রক্রিয়াও শেষ হয়েছে। তবে এরই মধ্যে রাজ্য রাজনীতির অন্যতম আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়িয়েছে তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব। এর পাশাপাশি রাজ্যের বিভিন্ন ওয়ার্ডে চলছে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের উৎসব। এসবের মধ্যেই দেবাংশু এই সকল বিতর্ক এবং আলোচনায় ঘৃতাহুতি দিলেন।

দেবাংশু ভট্টাচার্য সম্প্রতি তার সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে লিখেছেন, “ব্যক্তিগত স্বার্থে কিছু মানুষ ভোটে অশান্তি করেন। তাই লোকাল বডির ভোট গুলোতে অশান্তি বেশি হয়। পুলিশকে ১০০% ‘ফ্রি হ্যান্ড’ দিতে হবে। প্রয়োজনে বিধানসভার দ্বিগুণ সংখ্যক কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট হোক…” কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট করানোর দাবি তোলার পাশাপাশি আরও একাধিক বিষয়ে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন তিনি।

শেষ পঞ্চায়েত ভোটের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তিনি লিখেছেন, “আরেকবার ‘২০১৮’ হলে আরেকটা ‘২০১৯’ কিন্তু সময়ের অপেক্ষা.. বারবার সবটা ‘২০২১’ এর মতন হবে না। আর হাত জোড়া করে বাড়ি বাড়ি ঘুরলেও কিন্তু মানুষ ক্ষমা করবেন না ।যারা অশান্তি করেন, ভবিষ্যতে তারা অনায়াসে ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে সেটিং করে নিতে পারবেন। তখন মার খেতে হবে কর্মীদের.. মরতে হবে সাধারণ সদস্যদের।”

দেবাংশু ভট্টাচার্যের এহেন ফেসবুক পোস্ট শোরগোল ফেলে দিয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। সংসদীয় রাজনীতিতে এই পোস্ট শোরগোল ফেলে দেওয়ার কারণ হলো, সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে বিভিন্ন পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে বিরোধীদের নামমাত্র নেই। আবার কোন কোন পৌরসভা বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় জয় হাসিল করে নিয়েছে শাসক দল। যদিও এসব এর পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় নেতারা জানিয়েছেন, ‘বিরোধীরা প্রার্থী দিতে না পারলে অথবা তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হলে আমাদের তো আর কিছু করার নেই।’

আরো পড়ুন