পঞ্চায়েত ভোটের পুননির্বাচন এর দিনই NIA এর হাতে গ্রেফতার তৃণমূল পার্থী

পঞ্চায়েত ভোটের পুননির্বাচন এর দিনই NIA এর হাতে গ্রেফতার তৃণমূল পার্থী

পঞ্চায়েত ভোটের পুনর্নির্বাচনের দিনই গ্রেপ্তার তৃণমূল প্রার্থী। সোমবার বীরভূমের নলহাটি থেকে গেপ্তার করল NIA। দিন কয়েক আগে মহম্মদ বাজার থানা এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ জিলেটিন স্টিক-সহ বিস্ফোরক উদ্ধার হয়। সেই তদন্তে নেমে এনআইএ-র জালে তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রার্থী।

ধৃতের নাম মনোজ ঘোষ। ইতিপূর্বে তাঁকে দু’বার নোটিস পাঠানো হয়েছিল। এদিনও নলহাটি থানায় ডেকে পঞ্চায়েত প্রার্থীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিল। তারপর তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। ধৃতের নাম মনোজ ঘোষ। ইতিপূর্বে তাঁকে দু’বার নোটিস পাঠানো হয়েছিল। এদিনও নলহাটি থানায় ডেকে পঞ্চায়েত প্রার্থীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিল। তারপর তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়।পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে নলহাটিতে এনআইয়ে হানা দিয়েছিল।একটি পাথর খাদান এলাকা থেকে বিস্ফোরক জিলেটিন স্টিক, ডিটোনেটর, একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজ উদ্ধার হয়। খাদানের যে ঘর থেকে উদ্ধার হয় সেই ঘরটি এলাকার তৃণমূলের গ্রাম পঞ্চায়েত প্রার্থী মনোজ ঘোষের। সেই সূত্র ধরেই গ্রেপ্তার হলেন তিনি। তৃণমূলের দাবি, পরিত্যক্ত ঘর থেকে সামান্য কিছু জিলেটিন উদ্ধার করে তাকে ঘিরে এলাকায় আতঙ্ক ছড়াতে চাইছে। বিজেপির অভিযোগ সব জেনেও পুলিশি মদতে এই বিস্ফোরক মজুতের কাজ চলছে। ফলে ভোটের মুখে নলহাটির বাহাদুরপুর গ্রামকে ঘিরে আলোচনা তুঙ্গে।

নলহাটি এলাকায় যতগুলি পাথর খাদান আছে যার বেশিরভাগের কোনও সরকারি অনুমতি নেই। অথচ বেআইনি পথেই জিলেটিন, ডিটোনেটর দিয়েই খাদানের পাথরে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ব্যবসা চলে। কিছুদিন আগেই ওই এলাকায় রাজ্য পুলিশের স্পেশ্যাল টিম একটি বড়সড় বিস্ফোরক পাচারকারী দলকে গ্রেপ্তার করে। পরে যার তদন্তভার নেয় এনআইএ। সেই সূত্র ধরেই তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রার্থীকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

আরো পড়ুন